ইরানে বিক্ষোভকারীদের কঠোর হাতে দমনের নির্দেশ রাইসির

- Advertisement -

ইরানে বিক্ষোভকারীদের কঠোর হাতে দমন করার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। এদিকে পুলিশ হেফাজতে তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর জেরে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ দমনে প্রচলিত অস্ত্রের পাশাপাশি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে।

ইরানে সহিংস বিক্ষোভে ইতোমধ্যে ৪১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে দেশটির ৩১টি প্রদেশে। এতে এখন পর্যন্ত অন্তত ১ হাজার বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। ইরান ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা।

চলমান বিক্ষোভে ইরানে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি নিরাপত্তা বাহিনীতেও হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের পরিবারের প্রতি সমবদেনা জানাতে গিয়ে বিক্ষোভ কঠোর হাতে দমন করার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। এমনকি দেশের শান্তি ও নিরাপত্তা যারা আমলে নিচ্ছেন না, তাদের পরিকল্পিতভাবে মোকাবিলার কথাও জানান তিনি।

বিক্ষোভ দমাতে কাঁদানে গ্যাস, বেয়নেট, জলকামানের মতো প্রচলিত অস্ত্রের পাশাপাশি অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। মাহসার মৃত্যুর প্রতিবাদে ইরানের ৩০টির বেশি প্রদেশের পাশাপাশি বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ছে যুক্তরাষ্ট্র, গ্রিস, জার্মানি, ফ্রান্সসহ বিশ্বের অর্ধশতাধিক দেশে।

রাস্তায় নেমে নিজের চুল কাটার পাশাপাশি প্ল্যাকার্ড হাতে স্লোগান দিয়ে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাই প্রতিবাদ জানাচ্ছেন এ ঘটনার।

গত সপ্তাহে ‘ঠিকমতো’ হিজাব না পরার অভিযোগে মাহসা আমিনিকে গ্রেফতার করে ইরানের পুলিশ। পরে পুলিশি হেফাজতেই মৃত্যু হয় তার। পুলিশের নির্যাতনে ওই তরুণীর মৃত্যু হয়েছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ার পর ইরানজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

তবে কর্তৃপক্ষের দাবি, গ্রেফতার হওয়ার পর মাহসা আমিনি ‘হৃদরোগে’ আক্রান্ত হয়ে কোমায় চলে যান এবং পরে তার মৃত্যু হয়। যদিও পরিবারের দাবি, মাহসার হৃদরোগ ছিল না।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ