একদিকে ভূমি দখল অন্যদিকে অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ ছাড়াই প্রকল্প নির্মাণ

- Advertisement -

একদিকে ভূমি দখল, অন্যদিকে অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ ছাড়াই প্রকল্প নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্সের বিরুদ্ধে। চট্টগ্রাম নগরীর কালুরঘাট থেকে চাক্তাই পর্যন্ত সড়কের জায়গা ও আশপাশের ১২ একরের বেশি জমি দখল করেছে বলে দাবি ভূমি মালিকদের। আন্দোলন ও ক্ষোভ জানিয়ে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন তারা। এ ছাড়া কর্ণফুলী নদীর জায়গা দখল করে পাথরের ব্যবসা করার অভিযোগও আছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্পেক্ট্রার বিরুদ্ধে।

পাহাড়সমান পাথর আর বালির স্তূপ। বিশাল বিশাল স্থাপনা আর অবকাঠামো। এলাকাবাসীর অভিযোগ, এসব জায়গা জোর করে দখল করে চট্টগ্রাম নগরীর কালুরঘাট থেকে চাক্তাই পর্যন্ত সিডিএর সড়ক নির্মাণ করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ারিং।

ভুক্তভোগীদের দাবি, সিডিএ সড়কের জায়গা অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ দেয়নি। ভূমি মালিকরা জানান, ২০১৮ সালে নির্মাণাধীন সড়ক আর আশপাশের ১০-১২ একর জায়গা দখলে নিয়েছে সিডিএ ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ৪ বছর ধরে ক্ষতিপূরণে সিডিএ ও গণপূর্তসহ নানা প্রতিষ্ঠানে ভূমি মালিকরা দিয়েছেন স্মারকলিপি। এ ছাড়া ২০১৯ সালের জুনে হাইকোর্টের এক রিটে তিন গুণ ক্ষতিপূরণ দিয়ে ৩০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিলেও তা আমলে নেননি সিডিএর প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি শুধু এ জায়গা নয়, পাথরের ব্যবসার জন্য অবৈধভাবে কর্ণফুলী নদী দখল করে লোহার পাত দিয়ে নির্মাণ করেছে ঘাট। দখলের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ারিং লি.-এর উপপ্রকল্প ব্যবস্থাপক নাসির উদ্দীন দিদার।

নগরীর কালুরঘাট থেকে চাক্তাই পর্যন্ত প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে সাড়ে ৮ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ করছে সিডিএ।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ