এবার লাল গামছায় রক্ষা পেল আট শতাধিক ট্রেনযাত্রী

- Advertisement -

রাজশাহীতে উত্তরা এক্সপ্রেসের পর এবার অল্পের জন্য বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেল ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনের সাড়ে আট শতাধিক যাত্রী।

মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার রামচন্দ্রপুর এলাকায় রেললাইন ভাঙা দেখতে পেয়ে লাল গামছা টাঙিয়ে দেন স্থানীয় দুই ব্যক্তি। এতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পায়।

রাজশাহী রেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে প্রায় সাড়ে আটশ’ যাত্রী ছিল। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জিয়াউর রহমান ও হাবলু মিয়া নামে স্থানীয় দুই ব্যক্তি রেললাইনের পথ দিয়ে কৃষি কাজে যাচ্ছিলেন। এ সময় তারা লাইনের এক অংশে ভাঙা দেখতে পান। তাৎক্ষণিকভাবে বুদ্ধি করে লাইনের মাঝখানে নিজেদের লাল গামছা টাঙিয়ে দেন তারা। এই লাল কাপড় দেখে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি থামিয়ে দেন চালক। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর রেললাইন মেরামত করার পর ট্রেন চলাচল আবার স্বাভাবিক হয়।

রাজশাহী রেলওয়ের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী আবু জাফর বলেন, এ এলাকার লাইনগুলো অনেক পুরোনো। স্টিলের ও কাঠের স্লিপারের কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে। কংক্রিটের স্লিপার হলে দুর্ঘটনা কমে আসবে। আমরা নতুন লাইন স্থাপনের জন্য প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে। বরাদ্দ পেলে বাস্তবায়ন করা হবে।

এ বিষয়ে পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) অসীম কুমার তালুকদার বলেন, স্থানীয় দুই ব্যক্তির বুদ্ধিমত্তায় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে ঢাকাগামী বনলতা এক্সপ্রেস। লাইন মেরামত করার পর বর্তমানে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

এর আগে শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বাঘা উপজেলার আড়ানী স্টেশনের অদুরে বড়াল নদীর ব্রিজের পশ্চিম দিকে রেললাইন ভেঙে যায়। রেললাইন ভাঙা থাকায় লাল কাপড় দিয়ে সংকেতে দিয়ে রেখেছিলেন গেটম্যান। এতে দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ট্রেনের তিন শতাধিক যাত্রী।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ