খাবারে চেতনানাশক, ১১ জন হাসপাতালে

- Advertisement -

বরগুনায় আমতলীতে বাড়িতে ঢুকে খাবারে চেতনানাশক প্রয়োগ করা হয়েছে। সেই খাবার খেয়ে একই পরিবারের ১১ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। পরে তাদের আমতলী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (৬ মে) রাতে উপজেলার উত্তর খেকুয়ানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগীরা হলেন- আমতলী উপজেলার খেকুয়ানি এলাকার আয়জদ্দিন খলিফা (৭০), তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৬০), আলতাফ হোসেন খলিফা (৫৫) তার স্ত্রী শেফালী বেগমসহ (৫০) তাদের মেয়ে-জামাতা ও নাতি নাতনী।

স্বজনরা জানান, শুক্রবার রাতে অয়জউদ্দিহ খলিফার চাচাত ভাই ও প্রতিবেশী আবুল বাশার ঘরের দরজা খোলা দেখে স্থানীয় ফজলু ও আলতাফকে নিয়ে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে। তারা দেখতে পান একেকজন একেক জায়গায় অচেতন অবস্থায় পড়ে আছে। এরপর অচেতন অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। দুর্বৃত্তরা খাবারে চেতনানাশক মিশিয়ে ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্র হাতিয়ে নিয়েছে, এমনটাই অভিযোগ তাদের।

আয়জদ্দিন খলিফার ছেলে খলিল খলিফা বলেন, রাতে আমি বাড়িতে ছিলাম না। ঘটনা শুনে আমি স্থানীয় প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় আমার বৃদ্ধ বাবা মাসহ অন্যান্যদের অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য আমতলী হাসপাতালে এনে ভর্তি করেছি। কারা এ কাণ্ড ঘটিয়েছে তা বলতে পারছি না। তবে দুর্বৃত্তরা চুরির উদ্দেশে এমনটা করে থাকতে পারে বলে আমাদের ধারণা।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক সুমন বিশ্বাস বলেন, চেতনানাশক মিশ্রিত খাবার খাইয়ে পরিবারের সবাইকে অচেতন করা হয়েছে। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। চেতনানাশকের কার্যকারিতা কমলেই তাদের জ্ঞান ফিরে আসবে।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) রনজিৎ কুমার সরকার বলেন, ঘটনা শুনে হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তাদের জ্ঞান ফিরলে বিস্তারিত জেনে অভিযোগ অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ