গড়াই নদীর ভাঙন থেকে মরাবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন

- Advertisement -

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার পাশ দিয়ে প্রবাহিত গড়াই নদীর অব্যাহত ভাঙনে বিস্তীর্ণ জনপদ বিলীন হলেও এটি রোধে এখন পর্যন্ত স্থায়ী কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। তাই ভাঙন রোধে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী।

শনিবার (৬ আগষ্ট) সকালে বালিয়াকান্দি উপজেলাধীন নারুয়ার মারাবিলা গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত গড়াই নদীর পারে এলাকাবাসী আয়োজনে উক্ত মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় মরাবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সহ কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নিজেদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান টি রক্ষার দাবীতে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে। গড়াই নদীর ভাঙন কবলিত শত শত নারী পুরুষ মানববন্ধনে অংশ নেয়।

এ সময় তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে গড়াই নদীর ভাঙনে মরাবিলার বিস্তীর্ণ জনপদ বিলীন হলেও এটি রোধে স্থায়ী কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। ফলে এ এলাকার অনেক মানুষের বাড়ি-ঘর, ভিটে-মাটি ইতোমধ্যে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।মরাবিলা সহ আশেপাশের কয়েক গ্রামের মানুষের যাতায়াতের পাকা রাস্তাটি ও কয়েক বছর আগে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এই অত্র এলাকার একটি মাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মরাবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। যদি এখনি ভাঙন রোধে স্থায়ী সমাধান না করা হয় বিদ্যালয় টি বিলীন হয়ে যাবে।

তারা দাবি করে আপাতত মরাবিলা খেয়া ঘাট থেকে নারুয়া বাজার মুখি ১হাজার মিটার এলাকায় জিওব্যাগ ফেলে কিছুটা রক্ষা করা যেতে পারে। তা না হলে গড়াই নদীর পানি কমার সাথে সাথে প্রবল স্রোতে ব্যপক ভাঙনের সৃষ্টি হবে।

মানববন্ধন শেষে তারা বলেন, নদী ভাঙন রোধে বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও)আম্বিয়া সুলতানার কাছে রবিবার অফিস চলাকালীন সময়ে স্মারকলিপি প্রদান করবেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, মারাবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হালিম, মারাবিলা গ্রামের বাসিন্দা ঘিকমলা হাইস্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক আক্তারুজ্জামান, গাজি মিজানুর চঞ্চল, মহিদুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ