ছাতক রেলওয়ে গোডাউনে নিরাপত্তা প্রহরী খুনের আসামী গ্রেফতার

সেলিম মাহবুব, ছাতক (সুনামগঞ্জ)।।

ছাতকে গত ২৯শে জুন রাতে ছাতক রেলওয়ে নিরাপত্তা প্রহরী ফকরুল আলম প্রতিদিনের মত রেলওয়ে গোডাউনের নৈশ প্রহরীর ডিউটিতে নিয়োজিত হয়। ভোর ৬ টা পর্যন্ত ডিউটি শেষে নিজ বাসায় ফেরার কথা ছিলো তার কিন্তু অজ্ঞাতনামা ডাকাতদল রাত ২ টার সময় গোডাউনের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে নিরাপত্তা প্রহরী ফকরুল আলমকে নির্মমভাবে হত্যা করে গোডাউনেে থাকা রেলওয়ের লৌহজাত সহ বিভিন্ন মালামাল ডাকাতি করে নিয়ে যায়। পরদিন সকাল ৮-৩০মিনিটের সময় ছাতক রেলওেয়ের গোডাউনে নৈশ প্রহরী ফকরুল আলম’র রক্তাক্ত লাশ পাওয়া যায়।

এই ঘটনায় মৃত্যুর স্ত্রী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে মামলা দায়ের করিলে সুনামগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিপিএম’র দিক নির্দেশনায় এই চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস হত্যা মামলার দায়িত্ব পান ছাতক থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম। ডাকাত সর্দার আজম আলীর নেতৃত্বে একদল ডাকাত খুনসহ ডাকাতির ঘটনাটি সংগঠিত করে। দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলার রহস্য উদঘাটন করেন এবং মামলার ঘটনায় জড়িত ইতিমধ্যেই ডাকাত সর্দার আজম আলীর সহযোগীসহ ৫জন আসামীকে গ্রেফতার করিতে সক্ষম হন এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম।গ্রেফতারকৃত ৫ জন আসামী বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে। কিন্তু ডাকাত সর্দার আজম আলী ঘটনার পরপরই মোবাইল ফোন বন্ধ করে আত্মগোপনে চলে যায়। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না ডাকাত আজম আলীর।

সুনামগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিপিএম, সহকারী পুলিশ সুপার ছাতক সার্কেল বিল্লাল হোসেন এবং ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল’র দিক নির্দেশনায় ছাতক থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম সহ সঙ্গীয় অফিসার এসআই দেলোয়ার হোসেন, ইয়াসিন মুন্সি, সাইফুল ইসলাম, এএসআই সুমন কুমার গোপ, জয়নাল আবেদীনসহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সের সহয়তায় ৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে নোয়ারাই ইসলামপুর এলাকা থেকে মৃতঃ হোসন আলীর পুত্র চাঞ্চল্যকর খুন সহ ডাকাতি মামলার মুল হোতা ডাকাত সর্দার আজম আলী (৪৫) কে গ্রেফতার করিতে সক্ষম হয়। আসামী ডাকাত সর্দার আজম আলী কিছুদিন পূর্বে তিন বছর সাজা ভোগ করে হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে বেড়িয়ল এসে আবার অপরাধে জড়িয়ে পড়ে ও রেলওেয়ের নৈশ প্রহরীকে খুন করে। ডাকাত সর্দার আজম আলী’র বিরুদ্ধে ছাতক থানাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি, ছিনতাই, দ্রুত বিচার আইনে মামলা রহেছে বলে থানা সুত্রে জানা যায়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হাবিবুর রহমান পিপিএম বলেন, কোন অপরাধী অপরাধ করে পার পাবে না এবং তাকে আইনের আওতায় আসতেই হবে। ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল গ্রেফতার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সাফল্য ঈর্ষণীয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সাফল্য ঈর্ষণীয় বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। মঙ্গলবার বিকেলে শিল্পকলা একাডেমিতে ‘আর্ট অ্যাগেইনস্ট করোনা’ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করে এ...

রাষ্ট্রপতিকে নিয়ে ‘অসত্য বক্তব্য’ দেওয়া কর্মচারী বাধ্যতামূলক অবসরে

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকে নিয়ে ‘অসত্য’ বক্তব্য দেওয়ায় সাময়িক বরখাস্ত কর্মচারী মো. আতর আলীকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠিয়েছে সংসদ সচিবালয়। মঙ্গলবার তার বাধ্যতাধমূলক অবসর কার্যকর হয়েছে। সংসদ...

ফিটনেসবিহীন যানবাহন পর্যবেক্ষনে আবারো মাঠে নিসআ

প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে সড়ক দূর্ঘটনা, থামছে না মৃত্যুর মিছিল। কিন্তু তবুও সড়কে থেমে নেই ফিটনেসবিহীন যানবাহনের চলাচল।সড়ক দূর্ঘটনার ক্ষেত্রে এই ফিটনেসবিহীন যানবাহন অধিকাংশ ক্ষেত্রেই...

কিশোরীকে জোর করে বিয়ে, রেজিস্ট্রারসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রাকিবুল ইসলাম রাফি, পাংশা, রাজবাড়ী অপ্রাপ্ত কিশোরীকে ১৮ বছর বয়স দেখিয়ে জোর পূর্বক বিয়ে দেয়ার অভিযোগে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার যশাই ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার মাহাবুবুর রহমানসহ...
%d bloggers like this: