জনি ডেপকে ফাঁসাতে পরিকল্পনা, মেইল ফাঁস

- Advertisement -

পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে জনি ডেপকে। সম্প্রতি ফাঁস হওয়া এক ইমেইল দেখে এমনটাই মনে করা হচ্ছে। ইমেইলে ২০১৬ এর একটি ঘটনার কথা উল্লেখ করা আছে যখন পুলিশের কাছে একটি ফোন কল গিয়েছিল। সেই কলে ডেপের বিরুদ্ধে গৃহ নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছিলেন অ্যাম্বার। দাবি করেছিলেন ডেপের বাড়ি থেকেই ফোন করেছেন তিনি।

জনি ডেপের লিগ্যাল টিম অ্যাডাম ওয়াল্ডম্যান, বেন চিউ ও ক্যামিলি ভাসকুয়েজের মাঝে আদানপ্রদান হওয়া এই মেইলে ২০১৬-এর সেই ঘটনাটিকে মিথ্যা বলা হচ্ছে। এবং বলা হয়েছে, ডিভোর্স লয়্যারের সঙ্গে আলোচনা করে কাহিনী সাজিয়ে পুলিশকে ফোন করেছিলেন অ্যাম্বার। ইমেইলে বলা হয়েছে অ্যাম্বার হার্ড সাহায্য চাইতে ফোন করেছিলেন জোশ ড্রিউ-এর প্রাক্তন স্ত্রী পেনিংটনকে। পুরো বিষয়টি ছিল মিথ্যা ও সাজানো। তারা পরিকল্পিত উপায় অভিনেতাকে ফাঁসাতে চেয়েছিলেন। সেই সময়ে জনি বাড়িতে একাই লুকিয়ে ছিলেন।

অ্যাম্বার সেখানে ছিলেনই না। পাহারাদাররাও বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ইমেইলে ইলন মাস্কের সঙ্গে অ্যাম্বার হার্ডের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথাও লেখা আছে। জনির বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে ২০১৬ সালে বিচ্ছেদের আবেদন করেন অ্যাম্বার। অ্যাম্বারের এ অভিযোগে জনি ডেপের সুনাম, অর্থ, ক্যারিয়ার সব হারাতে হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের মেট গালাতে বাগদান সারেন জনি ডেপ ও অ্যাম্বার হার্ড। ২০১৬ সালের আগস্টে ৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ডিভোর্স নিষ্পত্তি করেন আদালত। বিচ্ছেদের দেড় বছরের মাথায় ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকায় নারীদের নির্যাতন নিয়ে অ্যাম্বার হার্ড একটি বই লেখেন। মতামতধর্মী ওই লেখায় জনি ডেপের নাম সরাসরি উল্লেখ করেননি অ্যাম্বার। কিন্তু জনি ডেপের দাবি ওই লেখার মাধ্যমে তার সাবেক স্ত্রী তার বিরুদ্ধে কুৎসা রটিয়েছেন এবং তাতে তার মানহানি হয়েছে।

পরে ২০১৯ সালে aঅ্যাম্বার হার্ডের এ লেখার কারণে তার বিরুদ্ধে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের মানহানি মামলা করেন জনি। পরে পাল্টা ১০০ মিলিয়ন ডলারের মামলা করেন অ্যাম্বার। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর সাবেক স্ত্রী আম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে করা মানহানির মামলায় জিতলেন মার্কিন অভিনেতা জনি ডেপ। আদালতের জুরি সদস্যরা জানিয়েছেন, আম্বার যে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ জনির বিরুদ্ধে এনেছিলেন, তা মিথ্যা এবং অবমাননাকর।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ