তিতাসে জরাজীর্ণ সড়ক, দুর্ভোগে স্থানীয়রা

- Advertisement -

কুমিল্লার তিতাসের নারান্দিয়া ইউনিয়নের ভাটিবন থেকে বালুয়াকান্দি জরাজীর্ণ সড়কের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে সাধারণ জনগণ।

দীর্ঘদিন ধরে প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তা মেরামত না হওয়ায় এ পথের শিক্ষার্থীরা যাতায়াতে নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, গৌরীপুর-হোমনা সড়ক থেকে বন্দরামপুর-নয়াকান্দি বাজার হয়ে আসমানিয়া বাজারের সড়কে প্রায় ১৫টি গ্রামের সাধারণ লোকজন চলাচল করে। এই জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির বন্দরামপুর থেকে ভাটিবন পশ্চিমপাড়া নুরুল ইসলামের বাড়ি পর্যন্ত এবং বালুয়াকান্দি অংশ থেকে আসমানিয়া-মাছিমপুর সড়ক পর্যন্ত পাকা থাকলেও বালুয়াকান্দি থেকে ভাটিবন নুরুল ইসলামের বাড়ি পর্যন্ত কাঁচা রাস্তা।

এই কাঁচা রাস্তাটি দিয়ে প্রায় ১০টি গ্রামের শিক্ষার্থীরা নারান্দিয়া কলিমিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, নারান্দিয়া উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কিন্ডারগার্টেনসহ একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করে। বিশেষ করে কৃষিপ্রধান এলাকা হওয়ায় কৃষকরা এ পথে তাদের ফসল জমি থেকে বিভিন্ন ধরনের শস্যযসামগ্রী বাজারে বিক্রি জন্য সরবরাহ করে থাকেন।

সন্তানদের নিয়ে ভাটিবন থেকে নারান্দিয়া উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাওয়া সালমা আক্তার জানান, সিএনজি করে বাচ্চাদের নেওয়া যায় না। রাস্তারটি উঁচু-নিচু হওয়ায় একদিন আমার ছেলে সিএনজি থেকে পড়ে যায়। বৃষ্টি হলে কাঁদা দিয়ে ছেলেমেয়েরা স্কুলে যায় না। আসমানিয়া বাজার থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী আনা-নেওয়াতে খুবই সমস্যা হয়। বিশেষ করে যাত্রীদের অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হয়।

এলজিইডির উপসহকারী প্রকৌশলী জাহিদ হোসেন জানান, উল্লেখিত অংশের উভয়প্রান্তে পাকা রাস্তা হয়েছে। মাঝের প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তার কাঁচা। ওই অংশের প্রাক্কলন ব্যয় নির্ধারণ করে দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। প্রকল্পটি ইতিমধ্যে পাস হয়েছে। টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হলে সড়কটি পাকাকরণের কাজ শুরু হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ