ধর্ম গোপন রেখে বিয়ে, অতঃপর…

- Advertisement -

ধর্ম গোপন রেখে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পোশাক শ্রমিক এক তরুণীকে বিয়ের করে তাপস বিশ্বাস (২৮) নামে এক যুবক। তিন বছর সংসারের পর পালিয়ে যান তিনি। পরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চেয়ে যুবকের বাড়িতে অনশনে বসেছিল ওই তরুণী। তাতেও সুরাহা না হওয়ায় অবশেষে থানায় মামলা করেন ওই তরুণী। পরে সোমবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় অভিযুক্ত তাপসকে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনাটি নেত্রকোনার মদন উপজেলার উপজেলার কাইটাইল ইউনিয়নের শিবাশ্রম গ্রামের। অভিযুক্ত তাপস ওই শিবাশ্রম গ্রামের সুধাংশ বিশ্বাসের ছেলে। তিনি গাজীপুরে কাঁচামালের ব্যবসা করতেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তাপস বিশ্বাস গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করায় দীর্ঘদিন ধরে সেখানে বসবাস করেন। প্রায় ৩ বছর আগে পোশাক শ্রমিক মুসলিম এক তরুণীর সঙ্গে নিজের ধর্মীয় পরিচয় গোপন রেখে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। এক পর্যায়ে ধর্মের বিষয়টি তরুণী জানতে পেরে হুজুর ডেকে কালিমা পড়ে বিয়ে করেন দুজনই।

পরে গাজীপুর এলাকায় দাম্পত্য জীবন শুরু করেন তারা। তাপস প্রায় ৪ মাস আগে ওই তরুণীর জমিয়ে রাখা টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে নিজ বাড়ি মদন উপজেলায় চলে আসে।

এছাড়া সব গোপন রেখে এক মাস আগে হিন্দু ধর্মীয় মতে নেত্রকোনার দুর্গাপুরে অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করেন তাপস। বিষয়টি আগের স্ত্রী জানতে পেরে ১০ অক্টোবর তাপস বিশ্বাসের বাড়িতে আসেন। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে তাপস বিশ্বাসের পরিবারের লোকজন তরুণীকে পাগল বলে মদন থানায় পাঠায়।

পরে পুলিশ ওই তরুণীকে উদ্ধার করে তার পরিবারের জিম্মায় দিয়ে দেয়। কিছু দিন যেতে না যেতেই তাপস ওই তরুণীকে নিয়ে সংসার করার আশ্বাস দিয়ে তাপসের বাড়িতে নিয়ে আসে। সেখানে এনে তরুণীকে মারধর করে হত্যার হুমকি দিলে তরুণী স্ত্রীর দাবিতে ওই বাড়িতে অবস্থান নেয়। পরে মদন থানায় গিয়ে তাপস বিশ্বাস ও তার বোন জামাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ সোমবার সন্ধ্যায় তাপসকে আটক করে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত তাপস বিশ্বাস প্রেমের বিষয়টি স্বীকার করলেও তাকে কাবিন করে বিয়ে করেননি বলে জানান।

নেত্রকোনার মদন থানার ওসি মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম জানান, এর আগেও মেয়েটি আমাদের কাছে এলে আমরা সদর থানায় পাঠাই। সেখান থেকে তার বাবা-মাকে ডেকে তাদের জিম্মায় দেওয়া হয়েছিল। পরবর্তীতে মেয়েটিকে ডেকে এনে মারধর করায় মেয়েটি আমাদের থানায় মামলা দায়ের করেছে। আমরা ওই মামলায় তাপস বিশ্বাসকে আটক করেছি।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ