নওগাঁয় যৌতুকের জন্য নির্যাতন, হাসপাতালে নববধূ

নওগাঁর রাণীনগরে হাত থেকে বিয়ের মেহেদীর রং মুছতে না মুছতেই যৌতুক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন নববধূ উম্মে কুলছম (১৮) নামের এক কলেজ পড়ুয়া তরুণী। বিয়ের ২২ দিনের মাথায় শ্বশুর, শাশুড়ি ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মারপিটের চিহ্ন নিয়ে বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শয্যায় শুয়ে শুয়ে কাতরাচ্ছে উপজেলার কনৌজ গ্রামের সামছুল ইসলামের মেয়ে কুলছুম।

এদিকে হাসপাতালে ভর্তির সপ্তাহ পার হলেও এখন পর্যন্ত কুলছুমের স্বামী কিংবা ওই পরিবারের কোন সদস্যই কুলছুম দেখতে আসেনি এবং কোন খোঁজ খবরও নেয়নি।

নববধূ কুলছুম জানায়, সে বর্তমানে রাণীনগর শের-এ বাংলা সরকারি মহাবিদ্যালয়ে এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। গত অক্টোবর মাসের ২৫ তারিখে একই গ্রামের আক্তারের ছেলে রাসেলে সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় লেনদেন কোন কথা ছিলো না। কিন্তু বিয়ের ১৫ দিন পার হতে না হতেই ফুফা শ্বশুর ময়েজের নেতৃত্বে স্বামী রাসেল, তার মা, বাবা ও বোন বাবার বাড়ি থেকে আমাকে যৌতুক হিসেবে ৩ লাখ টাকা নিয়ে আসতে বলে। এরপর থেকে তারা তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের পাশাপাশি মারপিট করতে শুরু করে।


আরও পড়ুন


গত ১৬ নভেম্বর শ্বশুর, শ্বাশুড়ি ও ননদ কুলছুমকে কোন কারণ ছাড়াই ৩ লাখ টাকার কোন ব্যবস্থা না করার দায়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকে। মারপিটের এক পর্যায়ে কুলছুম জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।নওগাঁর রাণীনগরে হাত থেকে বিয়ের মেহেদীর রং মুছতে না মুছতেই যৌতুক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন নববধূ উম্মে কুলছম (১৮) নামের এক কলেজ পড়ুয়া তরুণী।

বিয়ের ২২ দিনের মাথায় শ্বশুর, শাশুড়ি ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মারপিটের চিহ্ন নিয়ে বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শয্যায় শুয়ে শুয়ে কাতরাচ্ছে উপজেলার কনৌজ গ্রামের সামছুল ইসলামের মেয়ে কুলছুম। এদিকে হাসপাতালে ভর্তির সপ্তাহ পার হলেও এখন পর্যন্ত কুলছুমের স্বামী কিংবা ওই পরিবারের কোন সদস্যই কুলছুম দেখতে আসেনি এবং কোন খোঁজ খবরও নেয়নি।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: