নাব্য সংকটে বউলাই নদীতে বাল্কহেড আটকা, দুর্ভোগে শ্রমিকরা

- Advertisement -

নাব্য সংকটে গত ১০ দিন ধরে বালি, পাথর বোঝাই বাল্কহেড আটকা পড়ে আছে সুনামগঞ্জের বউলাই আবুয়া ও রক্তি নদীতে। প্রতিবছর নৌযান জটের কারণে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন ব্যবসায়ী, শ্রমিক ও মালিকরা। পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, নদী খননের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

সুনামগঞ্জে জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী ইউনিয়নের বউলাই নদীর তীরবর্তী বেহালী, রহমতপুর, পৈন্ডুপ, হিজলা হরিণাকান্দি আলীপুর, বদরপুর এলাকায় নাব্য সংকটের কারণে কয়েকশ বালি-পাথর বোঝাই নৌযান আটকা পড়েছে। নাব্য সংকটের কারণে ৩ ঘণ্টার নৌপথ পাড়ি দিতে তাদের ৫ থেকে ১০ দিন লাগছে। পলি ভরাট হয়ে নদীর তলদেশ সম্পূর্ণ ভরাট হয়ে যাওয়ায় সংকীর্ণ পথ দিয়ে একটি একটি করে নৌকা চলাচল করে। ১৯ কিলোমিটার দীর্ঘ বউলাই নদীর ১৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ছোট বড় অসংখ্য চর জেগেছে। দুর্ভোগের স্বীকার নৌযান শ্রমিক ও এলাকাবাসীর অভিযোগ ৫ বছর ধরে এ অবস্থা চলছে, কিন্তু নদী খননের কোন উদ্যোগ নেই পানি উন্নয়ন বোর্ডের।

নৌযান শ্রমিক ও এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রতিবছর আমাদের এখানে এসে আটকে থাকা লাগে। আজ ১৫ দিন যাবৎ আমরা একটা বেইলি বাজার ঘাটে আটকা আছি। অন্য একজন বলেন, নাব্য সংকটের কারণে কয়েক ঘণ্টার পথ পাড়ি দিতে তাদের সময় লাগছে ৫ থেকে ১০ দিন।

সুনামগঞ্জ জামালগঞ্জ বেহেলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুব্রত সামন্ত সরকার জানান, নদী খনন না করায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। এ নদী খনন করলে বেহেলী ইউনিয়নের মানুষ উপকৃত হবে, কৃষকরা উপকৃত হবে। এছাড়া সাধারণ মানুষ এ নৌ যানজট থেকে মুক্তি পাবে। নৌ শ্রমিকদের সমস্যাও নিরসন হবে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জুহুরুল ইসলাম বলেন, নদী খননের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এখন অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

জেলায় ছোট-বড় ৮০টি নদী ও ২৮০ কিলোমিটার নৌপথ রয়েছে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ