পঞ্চগড়ে নদী দখল-প্রশাসন নিরব ভুমিকায়

0
26
পঞ্চগড়ে নদী দখল-প্রশাসন নিরব ভুমিকায়
পঞ্চগড়ে নদী দখল-প্রশাসন নিরব ভুমিকায়
সাইদুজ্জামান রেজা, পঞ্চগড়।।

পঞ্চগড়ে সদর উপজেলায় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দিন-দুপুরে প্রকাশ্যে তালমা নদী দখল করার অভিযোগ উঠেছে সৌদি এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ইকো ফ্রেন্ড লিমিটেড নামে একটি বেসরকারি কোম্পানির বিরুদ্ধে। গত কয়েক দিনে শত শত ট্রাক্টর দিয়ে বালু ফেলে নদীটিকে দখল করছে ওই কোম্পানিটি।


আরও পড়ুন:


অপরদিকে এর পূর্বে তালমা নদী দখল করে হিমালয় বিনোদন পার্ক নামে একটি ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠান অবৈধভাবে মাটি ভরাট করে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করেছে। ফলে এখন অর্ধমৃত অবস্থায় রয়েছে তালমা নদী।

রোববার (২ নভেম্বর) বিকেলে জেলার সদর উপজেলাধীন হাফিজাবাদ ইউনিয়নের তালমা এলাকায় নদী দখলের এমন চিত্র দেখা গেছে।

সরেজমিনে জানা গেছে, এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ইকো ফ্রেন্ড লিমিটেড নামে ওই বেসরকারি কোম্পানিটি তালমা নদী দখল করে বালি ফেলে ভরাট করছে। এতে নদীর গতিপথ যেমন বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে, তেমনি নদীর প্রশস্ততা ও নাব্যতা হারিয়ে যাচ্ছে। আর এভাবে নদীটি বিলীন হলে পরিবেশ এবং কৃষি অর্থনীতির উপর বিরাট প্রভাব পড়বে বলে দাবি স্থানীয়দের।

পঞ্চগড় পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ নদী রক্ষা কমিশনের পঞ্চগড় জেলার নদ-নদী, খাল বিল ও জলাশয় জলাধার ভিত্তিক অবৈধ দখলদারদের তালিকা অনুসারে সৌদি এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ইকো ফ্রেন্ড লিমিটেড প্রায় সাড়ে ৭ একর ওই নদীর জমি দখল করেছে। বর্তমানে তারা নদীর প্রবাহমান ধারায় বালি ফেলছে। অন্যদিকে হিমালয় বিনোদন পার্ক প্রায় সাড়ে ৮ একর জমি দখল করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তালমা নদীর ওই এলাকায় এলজিইডি একটি রাবার ড্যাম স্থাপন করেছে। যার মাধ্যমে খরা মৌসুমে স্থানীয় কৃষকদের চ্যানেল সেচের মাধ্যমে পানি দেয়া হয় এবং একই এলাকায় কৃষি সেচের জন্য নলকূপ স্থাপন করে পানির লাইন নদীতে সংযুক্ত করা হয়েছে। ফলে কৃষকদের বিভিন্ন আবাদে সেচের মাধ্যমে পানি দেয়া হয়। তবে নদী দখল করে ভরাট করার কারণে পানি শূন্য হয়ে পড়েছে তালমা নদীটি।

এ বিষয়ে বামন পাড়া এলাকার খতিবুল ইসলাম ও সিরাজুল ইসলাম জানান, অনেকদিন ধরে প্রশাসনের নাকের ডগায় তালমা নদীটি দখল করছে তারা। বাধা দিয়েও কোনো লাভ হয়নি৷ আগামীতে নদী ভাঙনের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) পঞ্চগড় জেলা শাখার সভাপতি একেএম আনোয়ারুল খায়ের জানান, প্রকাশ্যে তালমা নদী দখল করা হচ্ছে। এতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে নদীটি। নদী দখল মুক্তে প্রশাসন দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে আন্দোলন করা হবে।

পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, ‘নদী দখলের বিষয়ে আমরা খবর পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply