পঞ্চগড়ে খাস জমি দখল করে গোপনে তোলা হচ্ছে ফ্ল্যাট

তপন বর্মন, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি।।

পঞ্চগড়ে সদর উপজেলার আবাসন প্রকল্পের খাস জমি দখল করে গোপনে তোলা হচ্ছে ফ্ল্যাট। ঘটনাটি পঞ্চগড়ের হাফিজাবাদ ইউনিয়নের পানিমাছ পুকুরীতে। মুক্তিযোদ্ধার সাইন বোর্ড ব্যবহার করে আবাসন প্রকল্পের খাস জমি দখল করে গোপনে তোলা হচ্ছে এ ফ্ল্যাট। রফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি এই ফ্ল্যাট তুলছেন।

ক্ষমতার অপব্যবহার করে চালিয়ে যাচ্ছেন নির্মাণ কাজ । রফিকুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধার ছেলে হওয়ায় স্থানীয়রা তার বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন না। চারপাশে উঁচু বেড়া দিয়ে ভেতরে জোরালোভাবে চলছে ফ্ল্যাটের নির্মাণ কাজ। প্রশাসন নির্মাণ কাজ বন্ধ করার নোটিশ করলেও মানছে না ওই ব্যক্তি।

রফিকুল আশ্রয়নের বরাদ্দ পাওয়া ঘরগুলো ঘেঁষেই তুলছেন ফ্ল্যাট বাড়ি। দৈর্ঘ্যে ৩৬ ফুট এবং প্রস্থে ৩২ ফুট। কাজও অনেক দূর এগিয়ে গেছে। কেবল ছাদ ঢালাই বাকি। বাইরে থেকে কেউ যেন বুঝতে না পারে সেজন্য বাঁশের চাটাই দিয়ে উঁচু করে বেড়া দেয়া হয়েছে। ভেতরে চলছে মিস্ত্রিদের কর্মযজ্ঞ। চারপাশে ছড়িয়ে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধার ছেলের রফিকুলের লাঠিয়াল বাহিনী ও তার পরিবারের লোকজন। বাইরের কেউ আসছে কিনা নজর রাখাই তাদের কাজ। একটু উঁচুতে দাঁড়িয়ে লক্ষ্য করলেই বোঝা যায় জায়গাটি আশ্রয়নের খাস জমির মধ্যেই রয়েছে। প্রভাবশালী হওয়ায় রফিকুলের বিরুদ্ধে স্থানীয়রা সরাসরি কেউ কথা বলতে রাজি হননি। জানা যায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করেই কাজে হাত লাগিয়েছেন ওই ব্যক্তি।


আরও পড়ুন>>


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই আশ্রয়নের এক বাসিন্দা বলেন, রফিকুল কোটিপতি মানুষ। তারপরও তাকে আশ্রয়নে ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ঘর পাওয়ার পর এখন কৌশলে খাস জমি দখল করে ফ্ল্যাট তুলছে। এদিকে আরো অনেকে জানান। মুক্তিযোদ্ধা সাইনবোর্ড ব্যবহার করে রফিকুল ইতিমধ্যেই। অনেক কিছু অবৈধভাবে অর্জন করে বাবা মুক্তিযোদ্ধা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলতে সাহস পায় না

রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার কেনা জমিতেই আমি ফ্ল্যাট তুলছি। এটি খাস জমি নয়। আশ্রয়নের খাস জমি সংলগ্ন আমি ১৫ শতক জমি কিনেছি। সেই জমিতেই ফ্ল্যাট তুলছি। সদর এসিল্যান্ড অফিস থেকে আমাকে নোটিশ করেছে। নোটিশ পেয়ে আমরা কাজ বন্ধ রেখেছি। এছাড়া জমিটির সব কাগজপত্র আমি এসিল্যান্ড অফিসে জমা দিয়েছি।

হাফিজাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম মুছা কলিমুল্লা বলেন, তারা গোপনে কাজ শুরু করেছে। আমরা বিষয়টি জানতাম না। যখন অবকাঠামো দৃশ্যমান হয়েছে তখন আমরা জেনেছি। প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। জমি যেহেতু সরকারের তাই বিষয়টি প্রশাসনই দেখবে।


আরও পড়ুন>>


পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন বলেন, খাস জমির উপর ওই ফ্ল্যাটটি নির্মিত হচ্ছে। সেটি উচ্ছেদের জন্য অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করা হয়েছে। নির্দেশনা পেলেই সেটি উচ্ছেদ করা হবে।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মান্নান বলেন, আমরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই ব্যক্তিকে দু’একদিনের মধ্যেই আরেকটি নোটিশ করবো। সে নিজে থেকে সরে না গেলে আমরা প্রশাসনিকভাবে আইনী প্রক্রিয়ায় তাকে উচ্ছেদ করবো।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে চীনকে প্রতিশ্রুতি মিয়ানমারের

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্টেট কাউন্সিলর ওয়াং ই বলেন, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত নেওয়া হবে বলে মিয়ানমার আবারও চীনকে আশ্বস্ত করেছে। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর)...

নতুন বাইক আনছে রয়্যাল এনফিল্ড

রয়্যাল এনফিল্ড কোম্পানির নতুন মোটরসাইকেল ‘মিটিয়র ৩৫০’ আগামী মাসেই বাজারে আসছে। সব বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে আগামী ৬ নভেম্বর এটি ভারতের বাজারে আসবে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের একটি প্রতিবেদনে...

‘আল্লাহ হাফেজ’ ও ‘খোদা হাফেজ’ নিয়ে ভাষাগত দ্বন্দ্বের খবর বিশ্ব গণমাধ্যমে

"ভাষা বিতর্ক: খোদা হাফেজ-এর জায়গায় আল্লাহ হাফেজ-এর প্রচলন কখন, কীভাবে হলো? আরবদের মাঝে বিদায়ী সম্ভাষণের ভাষা কী?" এই শিরোনামে বিবিসি বাংলায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত...

ভালুকায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মাঝে শাড়ি বিতরণ

ময়মনসিংহের ভালুকায় শারদীয় দূর্গাপূজা যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন উপলক্ষে ৬নং ওয়ার্ড নয়নপুর হিন্দু সম্প্রদায়ের সকল মহিলাদের মাঝে বিশেষ উপহার হিসেবে শাড়ী বিতরণ করা হয়েছে। ২৩ অক্টোবর...
%d bloggers like this: