পাংশায় নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে মামলাঃআসামী ৫শতাধিক

- Advertisement -

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার ১০ টি ইউনিয়ন গত ৫ জানুয়ারি শেষ হয়েছে ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচন। এতে আওয়ামীলীগ সমর্থিত নৌকা প্রতিকের ৮ জন ও আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী ২ জন চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়৷

শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন শেষ হলেও ফলাফল কে কেন্দ্র করে উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান (বিদ্রোহী) ও সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ সমর্থিত নৌকা প্রতিকের দুই চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে বাধে সংঘর্ষ।

এ সময় বাহাদুরপুর ইউনিয়নে পুলিশ ও প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের ওপর হামলা, নির্বাচনী সরমঞ্জাম ছিনতাই, গাড়িতে আগুন, পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। ওই দিনই পুলিশ বাদী হয়ে একটি ও ৬ জানুয়ারি প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সফুরা খাতুন, মুস্তাফিজুর রহমান, ইমদাদুল হক বাপ্পী বাদী হয়ে পৃথক পৃথক আরও তিনটি মামলা করেছেন পাংশা মডেল থানায়।এতে ৪টি মামলায় নারী ও পুরুষসহ ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।এতে করে ওই এলাকার নারী পুরুষদের মধ্যে গ্রেফতার আতঙ্ক বিরাজ করছে।

নাম পকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ব্যক্তি জানায়, বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষে ভোট গণনার পর সজীব হোসেনকে বেসরকারীভাবে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে নির্বাচনের দিন রাতেই বিজয়ী প্রার্থী সজিব হোসেনের সমর্থক ও নৌকার সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতার ঘটনা ঘটে।

পাংশা মডেল থানা ওসি তদন্ত উত্তম কুমার ঘোষ জানায়, বাহাদুরপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির শাকিল, সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. সজীব হোসেনসহ ১৫/১৬ জনের নাম উল্লেখ্য করে ও পৃথক চারটি মামলায় অন্তত ৫০০ নারী পুরুষকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন,আমরা তফসিল ঘোষণার পর থেকে কঠোর অবস্থানে ছিলাম।প্রথম থেকেই নির্বাচন কে কেন্দ্র করে সাধারণ ভোটার দের মাঝে উৎসব বিরাজ করছিলো। তবে শুধু মাত্র বাহাদুরপুর ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষ হয়। তবে ওই ঘটনায় পৃথক ৪টি মামলায় পাঁচ শতাধিক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী বলেন, উপজেলার ১০টি ইউনিয়নেই শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু বাহাদুরপুর ইউনিয়নে শেষ সময়ে ভুল বোঝাবুঝিতে একটি অনাকাঙ্কিত ঘটনা ঘটেছে। এটার জন্য আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ