পুঠিয়ায় টি এসপি সার নিয়ে কারসাজি, বিপাকে কৃষক

সোহানুর রহমান পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ 

রাজশাহীর পুঠিয়ায় টি এসপি সারের কৃত্রিম সংকট  সৃষ্টি করে দাম বৃদ্ধির অভিযোগ উঠেছ সার ডিলার সহ খুচরা সার বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে। টি এসপি সারের সংকট ও দাম বৃদ্ধির ফলে বিপাকে পরেছে সাধারন কৃষক।

বর্তমান সময়ে পেঁয়াজ, রসুন, গম, ভুট্টা আলু সহ অনেক ফসল উৎপাদনের জন্য সার কিনতে গিয়ে হতাশ হচ্ছেন তারা। টি এসপি সার পাওয়া যাচ্ছে না এই অজুহাতে সিন্ডিকেট করে দাম বৃদ্ধি করছে ডিলার ও সার বিক্রেতারা।

চাষিদের সাথে কথা বললে, চাষিরা বলছেন প্রতি বছরের মতো এবার ও আগাম ফসল সহ সব ফসল উৎপাদনের জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন তারা তবে টি এসপি সারের সংকট ও দাম বৃদ্ধির ফলে বিপাকে পরেছে তারা যদি টি এসপি সার পাওয়া না যায় তাহলে আশানুরূপ ফসল উৎপাদন করা সম্ভব হবে না। আর সারের দাম বৃদ্ধি হলে ফসল উৎপাদনের খরচ বৃদ্ধির কারনে ফসল উৎপাদন করে লোকসান গুনতে হবে বলে আশংকা করছের চাষিরা। সারা বছর সার পেতে কোন অসুবিধা না হলেও এই ভরা মৌসুমে ডিলাররা সিন্ডিকেট করে দাম বৃদ্ধি করেছে বলে অভিযোগ করেন চাষিরা।

আর ডিলাররা বলছে সিন্ডিকেট করে দাম বাড়ানো হয় নি, টি এসপি সার চাহিদার তুলনায় কম বরাদ্দের কারনে অন্য জায়গা থেকে নিয়ে এসে চাহিদা পুরন করতে হচ্ছে বেশি দামে ক্রয় করে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে এতে আমাদের কোন সিন্ডিকেট নেই। পুঠিয়ায় ৬ টি ইউনিয়নে ৮ টি বিসিআইসি সার ডিলার রয়েছে ৮ জন। বিএডিসি সার ডিলার রয়েছে ১৩ জন।


আরও পড়ুন


উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর বলছেন প্রতি মাসের ন্যায় এই মাসেও ডিলাররা সার উত্তোলন করেছ তাদের নিকট পর্যাপ্ত সার মজুদ আছে। কেউ যদি সারে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে দাম বেশি নেই তাহলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার নিকট অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ জানাতে পারেন অভিযোগ সত্যতা পেলে তার ডিলারশিপ বাতিল করা হবে।

আর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, এই বিষয়ে আমি খোঁজ খবর রাখবো কেউ বেশি দামে সার বিক্রি করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: