পেলোসির তাইওয়ান সফর: তলানিতে চীন- যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক

- Advertisement -

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের জেরে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পারস্পরিক সহযোগিতামূলক মাদকবিরোধী অভিযানসহ ৮টি চুক্তি স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং। এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। যুক্তরাষ্ট্রের কারণেই ওয়াশিংটন-বেইজিং কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এদিকে পেলোসির তাইপে সফর, তাইওয়ানের জনগণের ‘সর্বনাশ’ ডেকে আনতে পারে বলে শঙ্কা জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা।

চীনের হুমকি তোয়াক্কা না করে মার্কিন স্পিকারের তাইওয়ান সফরের জেরে একেবারে তলানিতে ঠেকেছে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্ক। তবে চীনের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতা লঙ্ঘন করে যুক্তরাষ্ট্রই ওয়াশিংটন-বেইজিং কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি ঘটাচ্ছে বলে দাবি করেছেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, তাইওয়ান ইস্যু নিয়ে কোনো ধরনের বিচ্ছিন্নতাবাদী তৎপরতা আমলে নেয়া হবে না।

এরমধ্যেই সফরের পাল্টা জবাবে চীন-যুক্তরাষ্ট্র পারস্পরিক সহযোগিতামূলক মাদকবিরোধী অভিযানসহ আটটি চুক্তি স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং। এতে যুক্তরাষ্ট্রে মাদকের বিস্তাররোধে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছে চীন।

চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কড়া নিষেধাজ্ঞার পরও মার্কিন স্পিকারের এভাবে তাইওয়ান সফর মূলত এটাই প্রমাণ করে যে চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের ভয়াবহ অবনতি হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকেও পাল্টা পদক্ষেপ অব্যাহত থাকবে। মাদকবরোধী অভিযানের যে পারস্পরিক চুক্তি ছিল সেখান থেকে সরে এসেছে চীন। সবারই জানা উচিত, মাদকের বিস্তাররোধে চীন অনেক এগিয়ে। তাই বিপদে পড়বে ওয়াশিংটনই।’

তবে পেলোসির তাইপে সফরের কারণে খেসারত দিতে হবে তাইওয়ানের জনগণকেই। তাইওয়ান ভূখন্ড ও চীনের ওপরই তাইপের অর্থনীতির অধিকাংশ নির্ভরশীলতা থাকায় ভঙ্গুর হতে পারে অঞ্চলটির অর্থনীতিও। এমন আশঙ্কাই করছেন আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা। এক্ষেত্রে চীনের শ্বেতপত্র বাস্তবায়ন ছাড়া আপাতত আর কোনো বিকল্প নেই তাইওয়ানের সামনে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ