প্রতিদিনই রেকর্ড ভাঙছে করোনা

- Advertisement -

বিশ্বে করোনাভাইরাসে একদিনে আক্রান্ত হয়েছে রেকর্ড প্রায় ২৮ লাখ মানুষ। মৃত্যু প্রায় ৮ হাজার। এরমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৭০ হাজারের বেশি। ফ্রান্সে একদিনে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার। এদিকে যুক্তরাজ্যে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৩৭৯ জন। গত বছরের ফেব্রুয়ারির পর দেশটিতে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা।

যুক্তরাষ্ট্র
করোনার কালো ছায়া যেন কোনোভাবেই ছাড়ছে না যুক্তরাষ্ট্রের পিছু। দিনের পর দিন এই মহামারি শেষ করে দিচ্ছে মার্কিনিদের জীবন। প্রতিদিনই রেকর্ড গড়ছে শনাক্তের হার। দেশটিতে করোনায় একদিনে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছে ৬ লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ। আর মারা গেছেন দুই হাজারের বেশি। পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিনামূল্যে বিতরণ করা হচ্ছে টেস্ট কিট।

ফ্রান্স
করোনায় টালমাটাল প্রায় গোটা ইউরোপ। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের হার। প্রতিদিনই রেকর্ড ছাড়াচ্ছে শনাক্তের হার। গত সপ্তাহের বুধবার ফ্রান্সে করোনা শনাক্তের রেকর্ড ছিল ৩ লাখ ৩২ হাজার ২৫২ জন। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দেশটিতে সব রেকর্ড ভেঙে গত একদিনে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার ১৪৯ জন।

ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলিভিয়ার ভেরান বলেন, আমরা খুব কঠিন একটা সময়ের ভেতর দিয়ে যাচ্ছি। এ সময় সকলের মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করতে হবে। সাড়ে তিন লাখের বেশি নাগরিকের মাঝে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। পরিস্থিতি যাতে আর খারাপ না হয়, সে জন্য সকলকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

করোনার লাগাম টানতে দেশটিতে নেয়া হয়েছে বেশকিছু পদক্ষেপ। টিকা না নেয়া ব্যক্তিরা যেতে পারবেন না কোন রেস্তোরাঁ বা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে। ভ্রমণ করতে পারবেন না দূরপাল্লার কোনো পরিবহনেও। এ অবস্থায় সবাইকে দ্রুত টিকা নেয়ার তাগিদ দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

পোল্যান্ড
ইউরোপের আরেক দেশ পোল্যান্ডও রয়েছে করোনার শিকলে। চতুর্থ ঢেউয়ে হিমশিম খাওয়া দেশটিতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

যুক্তরাজ্য
করোনার হানায় নাকাল যুক্তরাজ্যও। দেশটিতে গত একদিনে প্রাণ গেছে ৩৭৯ জনের। গতবছরের ফেব্রুয়ারির পর সর্বোচ্চ মৃত্যু দেখলো ব্রিটেনবাসী। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দেশটিতে নতুন করে একদিনে আরও ১ লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণ রোধে সবাইকে মাস্ক পরার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। এছাড়া, নাগরিকদের বুস্টার ডোজও দিচ্ছে দেশটির সরকার।

মেক্সিকো
মেক্সিকোর ১০টি পৌরসভায় করোনা পরীক্ষার জন্য বুথ বসানো হয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয়বার করোনা পজেটিভ হওয়ায় এবং কম পরীক্ষার কারণে সমালোচনার মুখে পড়ায় এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরমধ্যেই পরীক্ষাকেন্দ্রে নানা অব্যবস্থাপনা নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ।

পেরু
লাতিন আমেরিকার দেশ পেরুর হাসপাতালে বেড়েছে রোগীর সংখ্যা। দিন দিন দেশটিতে বেড়েই চলছে করোনার ডেল্টা এবং ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ