প্রশ্নে সাম্প্রদায়িক উসকানি, তদন্ত প্রতিবেদন জমা

- Advertisement -

এইচএসসি বাংলা পরীক্ষার প্রশ্নে সাম্প্রদায়িক উসকানি দেয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে যশোর বোর্ডের তদন্ত রিপোর্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর ও ঢাকা বোর্ডে জমা দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি এ প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রশ্নে অসঙ্গতির অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। অভিযুক্ত ৫ শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ শেষেই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। দুই ধরনের শাস্তির সুপারিশ করা হয়েছে। শিক্ষকদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়াসহ পরীক্ষার মতো সবধরনের কাজ থেকে দূরে রাখার সুপারিশ রয়েছে প্রতিবেদনে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের এমপিও বাতিলসহ সরকারি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের লঘু ও গুরু যেকোনো শাস্তি হতে পারে।

গত ৬ নভেম্বর উচ্চ মাধ্যমিকে বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা ছিল। নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে একযোগে পরীক্ষা শুরু হয় এদিন। ঢাকা বোর্ডের ১১ নম্বর সৃজনশীল প্রশ্নে সনাতন ধর্মের দুই ভাইয়ের জমি নিয়ে বিরোধের বিষয় তুলে ধরা হয়। এই প্রশ্ন নিয়ে দেশব্যাপী ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। সেই প্রশ্নপত্র প্রণয়ন ও পরিশোধনকারীদের চিহ্নিত করা হয়েছে।

অভিযুক্তরা হলেন—প্রশ্নপত্র প্রণেতা ডা. সাইফুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক প্রশান্ত কুমার পাল, প্রশ্নপত্র পরিশোধনকারী নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজের সহযোগী অধ্যাপক সৈয়দ তাজুদ্দিন শাওন, সাতক্ষীরা সহকারী মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মো. শফিকুর রহমান, নড়াইলের মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের সহকারী অধ্যাপক শ্যামল কুমার ঘোষ এবং কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা আদর্শ কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. রেজাউল করিম।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ