প্রিন্স হ্যারিকে নিরাপত্তা দিতে পুলিশের অস্বীকৃতি, আপিল

- Advertisement -

নিজ দেশে নিরাপত্তা চেয়ে যুক্তরাজ্যের একটি আদালতে আপিল করেছেন প্রিন্স হ্যারি। ব্রিটিশ সরকার তাকে পুলিশি নিরাপত্তা দিতে রাজি না হওয়ায় আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন হ্যারি ও মেগান মার্কেল।

এমন পরিস্থিতিতে এই দম্পতির জন্য নিজ দেশে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে রোববার (১৬ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

২০২০ সালে প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান মার্কেল রাজদায়িত্ব ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে পাড়ি জমান। সেখানে নতুন জীবন শুরু করেছেন এই দম্পতি।

যুক্তরাষ্ট্রে তাদের নিজস্ব নিরাপত্তা টিমও রয়েছে। তবে তারা হ্যারি ও মেগান দম্পতিকে ব্রিটেন সফরে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে বলে দাবি করেন প্রিন্স হ্যারির আইনি প্রতিনিধিরা।

ব্রিটিশ রাজপরিবারের দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়ার পর প্রিন্স হ্যারি নিজ দেশে নিরাপত্তা চেয়ে যুক্তরাজ্যের একটি আদালতে আপিল করেন।

যুক্তরাজ্যে থাকা অবস্থায় নিজ অর্থ ব্যয়ে ওই পুলিশি নিরাপত্তা চেয়েছিলেন তিনি। তবে রোববার এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, যুক্তরাজ্যে হ্যারিকে নিরাপত্তা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এ ঘটনার পর পরই আদালতে আপিল করেন হ্যারি। তার দাবি, যুক্তরাজ্যে তার পরিবারকে নিরাপত্তা দেয়ার মতো যথেষ্ট ক্ষমতা যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা দলের নেই।

প্রিন্স হ্যারির আইনজীবী জানান, যুক্তরাজ্য প্রিন্স হ্যারির মাতৃভূমি। আর এ দেশে তিনি তার পরিবার নিয়ে নিরাপদে থাকতে চান। পর্যাপ্ত নিরাপত্তার অভাবে তিনি ব্যক্তিগত জীবনে বড় ধরনের নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়তে পারেন বলে আশঙ্কা জানান হ্যারির আইনজীবী।

এর আগে এক সাক্ষাতকারে হ্যারি জানিয়েছিলেন, যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যমগুলো তার মানসিক স্বাস্থ্য বিপর্যস্ত করে তুলছিল। তাই রাজকীয় মর্যাদা ও রাজপরিবার ত্যাগ করেন তিনি।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ