ফাইভজিতে ভেঙে পড়বে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান চলাচল ব্যবস্থা!

- Advertisement -

ফাইভজি ইন্টারনেট চালুকে সামনে রেখে যুক্তরাষ্ট্রে ভেঙে পড়তে পারে বিমান চলাচল ব্যবস্থা। দেশটির বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে এক সতর্কবার্তায় এমনটাই জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ এয়ারলাইন্সগুলোর প্রধান নির্বাহীরা।

ফাইভজি ইন্টারনেট কার্যক্রমকে সামনে রেখে তুলকালাম এখন যুক্তরাষ্ট্রে। বুধবার দেশটির বিভিন্ন স্থানে ফাইভজি ইন্টারনেট চালু হলে ভেঙে পড়তে পারে বিমান পরিচালনা ব্যবস্থা। এমনটাই দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ এয়ারলাইন্সগুলো।

এয়ারলাইন্সগুলোর প্রধান নির্বাহীরা এক চিঠিতে জানিয়েছেন, ফাইভজি ইন্টারনেট কার্যক্রম চালুর জেরে কারিগরি ত্রুটির কারণে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক যাত্রী ও কার্গোবাহী বিমানের ফ্লাইট বাতিল করতে হবে।

এয়ারলাইন্সগুলোর আপত্তির মুখে দুই সপ্তাহ স্থগিত রাখার পর বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানে ফাইভজি কার্যক্রম চালু করতে যাচ্ছে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান এটিঅ্যান্ডটি এবং ভেরিজন।

এর ফলে ওয়াইডবডি এয়ারক্রাফটগুলোর ফ্লাইট ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছে মার্কিন বিমান সংস্থাগুলো। তাদের দাবি বিমানবন্দরের রানওয়ের সংলগ্ন স্থানে সি ব্যান্ড ফাইভজি সিগনালে বিঘ্নিত হবে বিমানগুলোর নেভিগেশন সিস্টেম। খারাপ আবহাওয়া কিংবা তুষারঝড়ের সময় এ সমস্যা আরও প্রকট হতে পারে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিসট্রেশন জানিয়েছিল, রানওয়ের আশপাশে ফাইভজি সিগনালের কারণে ভুল রিডিং দেখাতে পারে বিমানের উচ্চতা মাপার যন্ত্র অলটিমিটার।

এয়ারলাইন্সগুলোর প্রধান নির্বাহীদের লেখা এ চিঠির কপি পৌঁছেছে হোয়াইট হাউসেও। চিঠিতে সতর্ক করে দিয়ে আরও বলা হয়, বিমান পরিচালনা বিঘ্নিত হলে এর গুরুতর প্রভাব পড়বে যুক্তরাষ্ট্রের সাপ্লাই চেন সিস্টেমসহ সামগ্রিক বাণিজ্যিক কার্যক্রমে। এমনকি বিঘ্নিত হবে কোভিড ভ্যাকসিন সরবরাহ।

এদিকে এয়ারলাইন্সগুলোর উদ্বেগকে বাড়াবাড়ি মনে করছে ভেরিজোন ও এটিঅ্যান্ডটি। তারা বলছে, সি ব্যান্ড ফাইভ জি বিশ্বের আরও ৪০টি দেশে সফলভাবে কাজ করছে। সে দেশগুলোতে এ ধরনের কোনো সমস্যা হয়নি।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ