ফুলবাড়ীতে মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে ফিরলেও শঙ্কা কাটছে না শ্যামলাল রবিদাসের

ছেলের হত্যা চেষ্টাকারী গ্রেফতার না হওয়ায় শঙ্কায় দিন পার করছেন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার নেওয়াশী বাজার সংলগ্ন পূর্ব রাবাইটারী গ্রামের শ্যামলাল রবিদাস ও তার পরিবারের লোকজন। শ্যামলাল রবিদাস নিজ বাড়িতেই বাই সাইকেল মেরামতের কাজ ও ছেলে সুভাষচন্দ্র রবিদাস নেওয়াশী বাজারে জুতা সেলাই এর কাজ করেন।

জানা গেছে, একই উপজেলার বোয়াইলভীড় গ্রামের মৃত খয়ের মামুদের ছেলে সাবেক মেম্বার বজলে রহমানের সাথে ভিটেমাটির ১৩ শতাংশ জমির সীমানা জটিলতার বিরোধ চলছে। সেই বিরোধের জের ধরে গত ৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে সুভাষকে দোকান থেকে তুলে বাজারের একটি ফাঁকা রুমে নিয়ে গিয়ে মারধর ও গলা চেপে হত্যার চেষ্টা করে। স্থানীয় লোকজন তাকে মূমুর্ষূ অবস্থায় উদ্ধার করে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ৭ সেপ্টেম্বর একটু সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে ওইদিনই থানায় একটি মামলা দায়ের করেন সুভাষের বাবা। কিন্তু আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করলেও গ্রেপ্তার না হওয়ায় আবারো নির্যাতনের শিকার হওয়ার আশঙ্কায় আতঙ্কিত রয়েছেন শ্যামলাল ও তার পরিবার।


আরও পড়ুন>>


স্থানীয়রা জানান, তাদের ২৬ শতক ভিটেমাটি শ্যামলালের বাবা খুম লাল রবিদাস ও চাচা খোকা লাল রবিদাসের মধ্যে সমানভাবে ভাগ হয়। পরে খোকা লাল রবিদাসের চার ছেলে হরিদাস রবিদাস, কালিদাস রবিদাস, মন্টু রবিদাস ও হরিচরণ রবিদাস মিলে ১৩ শতক ও খুম লাল রবিদাসের এক ছেলে শ্যামলাল রবিদাস ১৩ শতক জমি পায়। ৭/৮ মাস আগে শ্যামলালের চাচাতো ভাই কালিদাস রবিদাস তার অংশ বজলে মেম্বারের কাছে বিক্রি করে অন্যত্র চলে যায়। বজলে মেম্বার সেই জমি ক্রয়ের পর তার অংশের চেয়েও কিছু বেশি জায়গা দখল করে পাকা ঘর উত্তোলনের ভিত্তি স্থাপন করে। তখন শ্যামলাল রবিদাস মেম্বারকে তার ১৩ শতক জমি সঠিক রেখে সরিয়ে ঘর তোলার কথা বলেন। সে কথা কর্ণপাত না করলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের কাছে বিচার প্রার্থনা করেন শ্যামলাল। স্থানীয় লোকজন কয়েকবার বৈঠক করলেও তা মানেনি মেম্বার। গায়ের জোর দেখিয়ে তার ঘরের টিনের চাল ভেঙ্গে ঘেঁষে ঘর উত্তোলন করেন। ছেলে সুভাষ এর প্রতিবাদ করায় মেম্বার তার ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে সুভাষ কে দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধর করেছিলেন।

মারধরের শিকার হওয়া সুভাষচন্দ্র রবিদাস জানায়, প্রতিদিনের মত দোকানে কাজ করছিলেন সুভাষ। সন্ধ্যার পর বজলে মেম্বারের ভারাটে মাস্তান প্রকৃতির লোকজন তাকে জোরপূর্বক দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বাজারে থাকা রফিকুল ইসলামের একটি ফাঁকা ঘরে তাকে বেধড়ক মারপিট করে। মারপিটের একসময় গলা চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টাও করে তারা। এ সময় প্রাণপণ চেষ্টা করে চিৎকার দিলে বাজারের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে।


আরও পড়ুন>>


সুভাষের বাবা শ্যামলাল রবিদাস বলেন, আমরা গরীব মানুষ। মানুষের জুতা সেলাই করে সংসার চালাই। তাই বলে কি আমরা সঠিক বিচার পাব না। আমাদের অর্থ সম্বল নাই। আমার নিরপরাধ ছেলেটাকে বাজারের দোকান থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে এভাবে মারধর করল। আমরা কোথাও গিয়ে এর বিচার পাচ্ছি না। তাই সুবিচার পাওয়ার আশায় থানায় গিয়ে মামলা করেছি।

এ ব্যাপারে সাবেক মেম্বার বজলে রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি এবিষয়ে কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ রাজীব কুমার রায় বলেন, গত ৭ সেপ্টেম্বর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামীদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ির মৃত্যু

এস এম আলতাফ হোসাইন সুমন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি।। লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় গোলাম কিবরিয়া ( ৫৫) নামের এক ব্যবসায়ির মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৭...

লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রী আর্থিক সহায়তার চেক বিতরন

লক্ষ্মীপুরে করোনা কালিন সময়ে ক্ষতিগ্রস্থ সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তার চেক বিতরন করা হয়। ২৮ অক্টোবর (বুধবার) সকালে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের সহযোগীতায় এবং জেলা প্রশাসনের...

হিলি বন্দরে দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য শুরু

টানা ছয়দিন পূজার ছুটি কাটিয়ে আজ বুধবার সকাল থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি শুরু হয়েছে। আজ বুধবার সকালে ভারত থেকে বিভিন্ন পণ্যবাহী ট্রাক দেশে প্রবেশের...

মহানবীর (সাঃ) ব্যঙ্গ কার্টুনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল শরীয়তপুর

ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এঁর ব্যঙ্গ কার্টুন প্রদর্শন করার প্রতিবাদে সমমনা ইসলামী দলসমূহের বিক্ষোভে উত্তাল শরীয়তপুর। বুধবার সকাল ১০টায় শরীয়তপুর শহরে পালং উত্তর...
%d bloggers like this: