বগুড়ায় জামিন জালিয়াতির ঘটনায় আরো ১৬ জন কারাগারে

0
24
বগুড়ায় বয়ে গেল কালবৈশাখী ঝড়
বগুড়ায় বয়ে গেল কালবৈশাখী ঝড়

উচ্চ আদালতের নামে জামিন জালিয়াতির ঘটনায় বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ও নব নির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর আমিনুল ইসলামসহ ১৬ জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম আসমা মাহমুদের আদালতে ১৬ জন উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পণের পর জামিন আবেদন করলে তা বিচারক নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেন।

এনিয়ে জামিন জালিয়াতির ঘটনায় বুধবার প্রথম দফায় ১৪ জন এবং বৃহস্পতিবার আরো ১৬ জন মোট ৩০ জনকেই জেল হাজতে প্রেরণ করা হলো।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের নিয়ন্ত্রণ নিযে সংঘর্ষের ঘটনায় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহন এর ভাই মশিউল আলম ১০ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা দায়ের করেন। এছাড়া পুলিশ বাদি হয়ে একটি এবং মোটর মালিক গ্রুপের কার্যালয়ে হামলার ঘটনায় আমিনুল ইসলাম বাদি হয়ে একটি মোট তিনটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা দায়েরের পর ১৪ ফেব্রুয়ারি ভুয়া জামিননামায় ৩০ জনের জামিন হয়েছে বলে কাগজ পত্রাদি বগুড়া সদর থানায় জমা দেয়। ২৪ ফেব্রুয়ারি ভুয়া জামিন নেওয়ার ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়। পরে উচ্চ আদালত ভুয়া জামিননামায় অভিযুক্ত ৩০ জনকে ৭ কার্য দিবসের মধ্যে গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করেন। এই নির্দেশের পর ৩ মার্চ ৩০ জনের মধ্যে ১৪ জন এবং ৪ মার্চ ১৬ জন আসামির জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।


আরও পড়ুন>>


বৃহস্পতিবার কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন বগুড়া পৌরসভার ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম, মোহাম্মদ বাদল, সেলিম, কিবরিয়া, আবদুল আলিম, সাদ্দাম, মাহমুদ, রতন, সেলিম রেজা, রুহুল আমিন, আনোয়ার মন্ডল, রাশেদুল, জাহিদুর রহমান, নুর আলম মন্ডল, বিপুল ও সুমন প্রামানিক। বুধবার কারাগারে পাঠানো ১৪ আসামি হলেন হলেন, লিটন, মানিক, জাকির, তানভির, গণি, রাসেল মন্ডল, আসাদুজ্জামান, খোকন, শিপন, আল মামুন, দিপ্ত, রাজিব, হেলাল, রাব্বী।

আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুল মান্নাফ জানান, ১৬ আসামি আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালতের বিচারক তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেছে।

Leave a Reply