বাগেরহাটে রাজনৈতিক দলের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারীর অর্ন্তভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

সাকিব হাওলাদার, বাগেরহাট প্রতিনিধি।।

নির্বাচন কমিশনের করা আইনে দেশের সকল রাজনৈতিক দলের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারীর অর্ন্তভুক্তি নিশ্চিত করতে সময়সীমা বেধে দেয়ার দাবিতে বাগেরহাটে মানববন্ধন করেছে নারী উন্নয়ন ফোরাম। মঙ্গলবার সকালে বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সামনে নারী উন্নয়ন ফোরাম ঘন্টাব্যাপী এই মাববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

২০০৮ সালের আরপিও সংশোধনীতে নির্বাচন কমিশনের প্রণিত আইনে ২০২০ সালের মধ্যে সকল রাজনৈতিক দলে ৩৩ শতাংশ নারীকে অর্ন্তভুক্তি করার শর্ত রেখেছিল। কিন্তু অধিকাংশ রাজনৈতিক দল সেই শর্ত না মানায় নির্বাচন কমিশন তাদের প্রণিত আইনে পরিবর্তন আনার চিন্তা করছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, নির্বাচন কমিশন দেশের সকাল রাজনৈতিক দলের সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী অর্ন্তভুক্তি করতে আর নির্দিষ্ট সময়সীমা বেধে না রেখে এসংক্রান্ত একটি নতুন আইন প্রণয়ন করতে ইতিমধ্যে খসড়া প্রস্তাবনা তৈরি করেছে। রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইন ২০২০ নামে এই আইনটি হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন তাদের প্রণিত ওই খসড়া আইনের কপি সকল রাজনৈতিক দলের কাছে পাঠিয়ে আগামী ৭ জুলাইয়ের মধ্যে তাদের মতামত জানতে চেয়েছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশন আগের আইনের বিধানগুলো সংযোজন বিয়োজন করে নারী প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতের সময়সীমা তুলে দেওয়ার প্রস্তাব এনেছে। ২০০৮ সাল থেকে আজ ২০২০ সাল। প্রায় এক যুগ আগের করা নির্বাচন কশিনের আইনটি তাদের মনিটরিং এর অভাবে আজও বাস্তবায়ন হয়নি। নির্বাচন কমিশনের আইন কেউ মানছে না এই খোড়া অজুহাতে তা বাতিল করার অপচেষ্টা চলছে। নির্বাচন কমিশনের করা আইন বাতিল হলে নারীর অগ্রগতির ইতিহাসে কালো অধ্যায় রচিত হবে বলে মন্তব্য করেন বক্তারা।


আরও পড়ুন


তারা আরও বলেন, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও জনসাধারনের জীবনে সিদ্ধান্ত গ্রহনে নারী অংশগ্রহণ এবং নেতৃত্বে সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে। সুতরাং আইন বাতিল না করে রাজনৈতিক দলগুলোতে ৩৩ শতাংশ নারীর অর্ন্তভুক্তির সময়সীমা বাড়াতে নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি জানাচ্ছি।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভীন, নারী উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রাবেয়া রহমান, বাগেরহাট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শরীফা খানম, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তানিয়া খাতুন, সাধারণ সম্পাদক সাদিয়া আফরোজ, জেলা পরিষদের সদস্য আফরোজা আক্তার লীনা, মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট পারভীন আহমেদ প্রমূখ।

- Advertisement -

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ

Bengali Bengali English English German German Italian Italian
%d bloggers like this: