বাড়ছে সৌদির সব ধরনের ভিসার মেয়াদ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় বিভিন্ন ভিসার মেয়াদ বাড়াচ্ছে সৌদি আরব। ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ছ সব ধরনের ভিসার মেয়াদ। ভিজিট ভিসার মেয়াদ বাড়ার পাশাপাশি দেশে প্রবেশের জন্য লাগবে না কোনো এন্ট্রি ফি। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার পর দেশজুড়ে বিভিন্ন কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল সৌদি আরব। তবে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কার্যক্রম শুরুর কারণে আবারও এসব বিধিনিষেধ শিথিল করা শুরু করেছে দেশটি।

বর্তমানে প্রবাসীদের জন্য বসবাসের অনুমতির মেয়াদ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাড়িয়েছে দেশটির প্রশাসন। একই সঙ্গে আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত প্রবাসীদের ভ্রমণ ভিসা ও বহির্গমন ও পুনঃপ্রবেশ ভিসার মেয়াদও বাড়িয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। বিভিন্ন ধরনের এসব ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর ক্ষেত্রে কোন ধরনের ফিস অথবা চার্জ প্রযোজ্য নয় বলেও জানিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

সৌদি জেনারেল ডিরেক্টরেট অব পাসপোর্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, মেয়াদ বাড়ানোর এ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণভাবে ইলেক্ট্রনিক স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার মাধ্যমে করা হবে। একইভাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতও জানায়, তারা বৈধ অভিবাসন ভিসাধারীদের ক্ষেত্রে দেশটিতে পুনরায় প্রবেশের অনুমতি দেবে। এমনকি এ প্রবাসীরা ছয় মাসের বেশি সময় ধরে ইউএইর বাইরে অবস্থান করার পরও তাদের দেশে প্রবেশের অনুমতি দেবে আমিরাত কর্তৃপক্ষ।

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানায়, সৌদি অর্থ মন্ত্রণালয়ের ইস্যু করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ পরিকল্পনা মূলত দেশটির করোনাকালীন পরিস্থিতি থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়ার একটি অংশ। সৌদি নাগরিক ও স্থানীয় বাসিন্দারের নিরাপত্তা নিশ্চিতে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

জুলাইয়ের শুরু থেকে ইউএই ও সৌদি আরবের মধ্যে ফ্লাইট পরিচালনা স্থগিত থাকলেও গত সপ্তাহ থেকে তা আবারো চালু করা হয়েছে। ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দেয়ার পর যাত্রীদের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে ফ্লাইট অনুসন্ধানের পরিমাণ বেড়েছে ১ হাজার ৭০০ শতাংশ।

গেল মাসে সৌদি কর্তৃপক্ষ জানায়,যারা করোনা টিকার দুই ডোজ গ্রহণ করেছেন, তারা দেশে প্রবেশের অনুমতি পাবে, যেসব দেশের নাগরিকদের সৌদি আরব ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আছে, দুই ডোজ টিকা নিলে তারাও সৌদি আরব ভ্রমণের সুযোগ পাবে। আর যারা সৌদি আরব থেকে দুই ডোজ টিকা নিশ্চিত করে নিজ দেশে গেছেন, তারাই কর্মস্থলে প্রবেশ করতে পারবে বলেও জানায় সৌদি কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত, আর্জেন্টিনা আর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে। এই দেশগুলোতে সৌদি নাগরিকদের ভ্রমণেও আর কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ