বিক্রি না থাকায় ২দিনে ও বন্দরে প্রবেশ করেনি ভারতীয় পিঁয়াজ

চাহিদা না থাকায় হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি সাময়িক বন্ধ রেখেছেন আমদানিকারকরা। হিলি স্থল শুল্ক স্টেশন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ ও ১৪ জানুয়ারি ২দিন যাবৎ কোন পেঁয়াজের গাড়ি বন্দরে প্রবেশ করেনি ।

হিলি বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা ফিরোজ হোসেন বলেন, বর্তমানে বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজের ও দেশী পেঁয়াজের দাম একই। এছাড়া ভারতীয় পেঁয়াজ আগে ৩০টাকা কেজি কিনে ২৮টাকায় বিক্রি করে কেজিতে ২টাকা লোকসান হয়েছে। ভারতীয় পেঁয়াজের চাইতে দেশীয় পেঁয়াজের স্বাদ ও মান ভালো হওয়ায় কারনে ক্রেতারা ভারতীয় পেঁয়াজ না কিনে দেশী পেঁয়াজ কিনছেন। এতে করে বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজের চাহিদা নেই ।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক আবু সায়েম “বাংলা দর্পনকে” জানান, বর্তমানে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি করতে, আমাদের ৩৫/৩৭ টাকার মতো পড়তা হচ্ছে। কিন্তু দেশের বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হচ্ছে ৩০ টাকা করে। অবার দেশী পেঁয়াজ ভারতীয় পেঁয়াজের চেয়ে ৭/৮টাকা কম হওয়ার কারনে বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ চলছে না। কিন্তু বর্তমান বাজারে দেশীয় পেঁয়াজের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় ভারতীয় ও দেশী পেঁয়াজের দাম সমান সমান হওয়ায় ভারতীয় পেঁয়াজের চাহিদা নেই। আবার ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানিতে পড়তা না থাকায় লোকসানের কারণে আমদানি বন্ধ করে দিয়েছেন আমদানিকারকরা।


আরও পড়ুন>>


হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের ডেপুটি কমিশনার, সাইদুল আলম “বাংলা দর্পনকে” জানান, বর্তমানে পেঁয়াজ আমদানিতে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। ফলে বর্তমানে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজের কোনও আমদানি নেই। প্রথম কয়েকদিন এই বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হলেও বর্তমানে পেঁয়াজ অসছে না ।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: