বিক্ষোভ দমনে কাজাখস্তানে রুশ ছত্রীসেনা

- Advertisement -

সহিংস বিদ্রোহ দমনে কাজাখস্তানে পা রেখেছেন রাশিয়ার ছত্রীসেনারা। কঠোর নিয়ন্ত্রিত সাবেক সোভিয়েত দেশটিতে প্রাণঘাতী সহিংসতার পর শান্তিমিশনের ভূমিকা রাখতে তাদের পাঠানো হয়েছে।

তবে কী পরিমাণ সেনা পাঠানো হয়েছে, তা প্রকাশ করা হয়নি। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও গার্ডিয়ান এমন খবর দিয়েছে।

রুশ বার্তা সংস্থাগুলো বলছে, কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট কাসিয়াম-জোমার্ট তোকায়েভ যাতে দেশের ওপর তার নিয়ন্ত্রণ ফিরে পান, তাতে সহায়তা করবে মস্কো-নেতৃত্বাধীন জোট। তারই অংশ হিসেবে এসব ছত্রীসেনা পাঠানো হয়েছে।

এর আগে বুধবার (৫ জানুয়ারি) যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থার (সিএসটিও) সহযোগিতা চেয়েছেন কাজাখ প্রেসিডেন্ট। সঙ্গে সঙ্গে তা অনুমোদন পেয়েছে। রাশিয়া, আর্মেনিয়া, বেলারুস, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তান সই করেছে এ চুক্তিতে।

কাজাখস্তানের পুলিশ, সামরিক বাহিনী ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। এতে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে নির্ভরযোগ্য তথ্য খুবই কম পাওয়া যাচ্ছে।

কিন্তু দেশটির সবচেয়ে বড় শহর আলমাতির পুলিশের মুখপাত্রের বরাতে বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা দাবি করছে, সরকারি ভবনগুলোতে হামলার সময় কয়েক ডজন লোক নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার আলমাতি শহরের কর্তৃপক্ষ বলছে, সহিংসতায় ৩৫৩ পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য আহত হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা ১২, তাদের মধ্যে দুজনকে শিরশ্ছেদ করা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে রয়টার্সের সাংবাদিকেরা বলছেন, প্রেসিডেন্টের একটি আবাসিক ভবন ও মেয়রের কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। সকালের দিকে শহরের বিমানবন্দরও বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। সড়কজুড়ে দগ্ধ গাড়ির অবশিষ্টাংশ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে।

এ অস্থিরতার নেপথ্যে বিদেশ থেকে প্রশিক্ষিত সন্ত্রাসীরা রয়েছে বলে দাবি করছেন প্রেসিডেন্ট প্রেসিডেন্ট কাসিয়াম-জোমার্ট। ইতিমধ্যে শহরের বিভিন্ন ভবন ও অস্ত্র দখলে নিয়েছে তারা।

তিনি বলেন, এভাবে রাষ্ট্রের অখণ্ডতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করা হচ্ছে। আরও জোর দিয়ে বললে—এটি আমাদের নাগরিকদের ওপর হামলা। আক্রান্তরা জরুরিভিত্তিতে সহায়তা চেয়েছেন।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ