ভারতের বিহারে মুসলিম ভোট ভাগাভাগি!

ভারতের বিহার রাজ্যের চলছে বিধানসভার ভোট। এই রাজ্যে এবার মুসলিমদের ভোট ভাগাভাগি হয়ে যাচ্ছে বলে ধারণ করছেন বিশ্লেষকরা।

এদিকে শনিবার সমাপ্ত হল বিহারের তৃতীয় দফা শেষ দফার নির্বাচন। নির্বাচন কমিশন সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৫৪.০৬ শতাংশ। সবথেকে বেশি ভোট পড়েছে কিষাণগঞ্জে। ৫৯.৭৭ শতাংশ। শেষ দফায় রাজ্যের ১৫টি জেলায় মোট ৭৮টি আসনে ভোট হয়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ১,২০৪ প্রার্থী। এঁদের মধ্যে ১২ জন মন্ত্রী ও বিধানসভার স্পিকারও রয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্য শেষ দফা নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই দফাই বিহারের কুর্সি দখলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এনডিএ’র তরফে জেডিইউ ৩৭টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে। বিজেপি দিয়েছে ৩৫টি আসনে। বিকাশশীল ইন্সান পার্টি (ভিআইপি) ও হাম যথাক্রমে ৫টি ও ১টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে।

অন্যদিকে, মহাজোটের পক্ষ থেকে আরজেডি ৪৬টি আসনে, কংগ্রেস ২৫টি আসনে, সিপিআই (এমএল) ৫টি আসনে ও সিপিআই ২টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে। লোকজন শক্তি পার্টি (এলজেপি) ৪২টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে। এই দফায় গুরুত্বপূর্ণ যে বিধানসভা কেন্দ্রগুলিতে ভোট হয়েছে সেগুলির মধ্যে রয়েছে পশ্চিম চম্পারন, পূর্ব চম্পারন, সীতামারহি, মধুবনি, সুপৌল, আড়ারিয়া, কিষাণগঞ্জ, কাটিহার, মাধেপুর, সাহারসা, দ্বারভাঙ্গা, মুজাফফরপুর, বৈশালি, সামাস্তিপুর।


আরও পড়ুন


শেষ দফার ভোট হয়েছে মূলত মিথিলাঞ্চল ও সীমাঞ্চলে। এখানে উল্লেখযোগ্যভাবে রয়েছে মুসলিম ও যাদব ভোট। মনে করা হচ্ছে এই দুই তরফের ভোটই মহাজোটের পক্ষে যাবে। তবে, মুসলিম অধ্যুষিত কেন্দ্রগুলিতে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে মহাজোট ও আসাদউদ্দিন ওয়াইসির মিমের মধ্যে। ফলে মুসলিম ভোট ভাগাভাগি হওয়ার আশংকা রয়েছে। গত বারের বিধানসভা ভোটে (২০১০) সীমাঞ্চল থেকে ভাল ভোট পেয়েছিল তৎকালীন আরজেডি-জেডিইউ জোট পরে অবশ্য নীতীশ কুমারের দল জেডিইউ জোট ভেঙে বেরিয়ে এসে বিজেপির সঙ্গে যোগ দেয়।


আরও পড়ুন


তৃতীয় দফায় সীমাঞ্চল এলাকায় অন্ততঃ ২৪টি আসনে ভোট হচ্ছে। বর্তমানে এই ২৪টি কেন্দ্রে মহাজোটবন্ধনের বিধায়ক রয়েছেন ১৪জন। এনডিএ’র রয়েছে ৯ জন বিধায়ক আর মিমের ১ জন বিধায়ক রয়েছে। মিথিলাঞ্চল এলাকায় মোট বিধানসভা আসন ৩৮টি। এর মধ্যে দ্বারভাঙ্গায় ৫টি, মধুবনিতে ৬টি, সমস্তিপুরে ৫টি, মাধেপুরায় ৮টি, সাহারসায় ৮টি ও সীতামারহিতে ৬টি আসন রয়েছে। মিথিলাঞ্চলে অবশ্য গত নির্বাচনে বিজেপি ভাল ফল করতে পারেনি। ৩৮টি আসনের মধ্যে গেরুয়া শিবির পেয়েছিল মাত্র ৬টি আসন।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: