ভূরুঙ্গামারীর ক্লিনিকগুলোতে চিকিৎসা সেবা পুরোদমে চালু

0
29
ভূরুঙ্গামারীর ক্লিনিকগুলোতে চিকিৎসা সেবা পুরোদমে চালু
ভূরুঙ্গামারীর ক্লিনিকগুলোতে চিকিৎসা সেবা পুরোদমে চালু
আজিজুল হক, নিজস্ব প্রতিবেদক।।

ভূরুঙ্গামারীতে ক্লিনিক ও নার্সিংহোমগুলো পুরোপুরি চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভূরুঙ্গামারী ক্লিনিক মালিক সমিতি। এ লক্ষ্যে আগামি শুক্রবার থেকে বহিরাগত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগন তাদের পূর্বনির্ধারিত চেম্বারে রোগী দেখবেন।

মালিক সমিতির তথ্যমতে , উপজেলায় বেসরকারি ভাবে গড়ে উঠা ৮ টি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে প্রতি শুক্রবার রংপুর ও দিনাজপুর মেডিকেল কলেজসহ দেশের অন্যান্য মেডিকেল কলেজ থেকে প্রায় ৪০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নিয়মিত রোগি দেখতেন।

করোনা দুর্যোগে উত্তর ধরলার চিকিৎসা কেন্দ্র হিসাবে পরিচিত ভূরুঙ্গামারীর ক্লিনিকগুলোতে চিকিৎসা কার্যক্রম প্রায় বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়ে গিয়েছিল এ অঞ্চলের শত শত রোগী। মানুষের ভোগান্তির কথা ভেবেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।


আরও পড়ুন>>

এদিকে প্রায় ৩ মাস পর ক্লিনিকগুলোতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের চিকিৎসা পুনরায় চালু হওয়ায় প্রশান্তির পাশাপাশি শঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেক মানুষ। অনেকের ধারণা ক্লিনিকগুলোতে যে পরিমান ভীড় হয় তাতে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ন্ত্রণ করা অনেক বড় চ্যালেঞ্জ।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ অফিসার ডাঃ এএসএস সায়েম জানান, করোনা দুর্যোগের কারণে অনেক জটিল রোগী সুচিকিৎসার জন্য বাইরে যেতে পারছেন না । এমতাবস্থায় বহিরাগত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যদি আসেন তাহলে এটা আমাদের জন্য ভালো।

তবে এক্ষেত্রে সামাজিক ও দৈহিক দূরত্বসহ অন্যান্য জরুরী স্বাস্থ্য বিধি কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে আলোচনা করে একটি মনিটরিং টিম গঠনেরও আশ্বাস দেন তিনি।

মালিক সমিতির সভাপতি ও মাহবুব ক্লিনিক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রবিউল আলম রঞ্জু জানান, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে প্রতিটি চেম্বারে ৩০ জনের বেশি রোগী দেখবেন না ডাক্তাররা। প্রত্যেক রোগীকে অবশ্যই মাস্ক পরে আসতে হবে এবং চেম্বারের সামনে স্থাপিত বেসিনে হাত ধুয়ে রুমে ঢুকতে হবে। প্রচারণা সীমিত রাখতে সপ্তাহে মাত্র একদিন মাইকিং করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ভূরুঙ্গামারীর ক্লিনিক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাদার ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোম এর মালিক আনোয়ার হোসেন স্বপন বলেন, মানুষের কথা ভেবে সীমিত পরিসরে ক্লিনিকগুলো চালু হচ্ছে।

কঠোরভাবে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ন্ত্রণ করার শর্তে কিছু ডাক্তার আসতে রাজি হয়েছেন। আমরা সকল স্বাস্থ্য বিধি মেনেই কাজ করবো। তিনি আশ্বস্ত করে বলেন, আমরা মানুষের উপকার করতে গিয়ে ক্ষতি করতে চাই না।

Leave a Reply