মহাদেবপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় নৌকার কর্মীসহ আহত ৫

- Advertisement -

আগামী রবিবার (২৬ ডিসেম্বর) চতুর্থ ধাপের নির্বাচনকে সামনে রেখে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ভোটারদের হুমকি-ধামকি, কর্মীদের উপর হামলা ও মহিলা কর্মীকে মারধরের অভিযোগ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৮টায় উপজেলার সফাপুর ইউনিয়নে মোস্তাকিন হোসেন (৩৫) নামে নৌকার এক কর্মীকে বেদম মারপিট করা হয়েছে। তিনি ওই ইউনিয়নের তাতারপুর গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে। প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে তার মাথা কেটে গেছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির পর তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এই ঘটনায় স্বতন্ত্র (বিএনপি) প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান শামসুল হক বাচ্চুকে দায়ী করা হয়েছে।

নৌকার প্রার্থী ময়নুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান বাচ্চু ও তার ছেলে মোস্তাকিনের উপর হামলা চালিয়ে তাকে বাঁশ দিয়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয়। চেয়ারম্যান শামসুল হক বাচ্চু বলেন, তিনি সেখানে গণসংযোগ করার সময় মোস্তাকিন তাকে চর থাপ্পড় মারেন। এই ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থকেরা মোস্তাকিনকে গণধোলাই দেয়। এ ঘটনায় তার তিনজন কর্মী বজলু, আইন ও দুলাল গুরুতর আহত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, উভয় পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপর ঘটনায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় চাঁন্দাশ ইউনিয়নে স্বতন্ত্রপ্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমুদান নবী রিপনের পক্ষে জোড়া পাতা মার্কায় ভোট চাওয়ায় শাহীনুর বেগম (২৪) নামে এক গৃহবধূকে মারধর করা হয়েছে। তিনি রামরায়পুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের মোজাহার হোসেনের স্ত্রী। তিনি জানান, নৌকার বিপক্ষে ভোট চাওয়ায় ওই গ্রামের নৌকার কর্মী আমিনুর ও তার লোকেরা তাকে মারপিট করে।

প্রার্থী মাহমুদান নবী রিপন জানান, তার ওই কর্মীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

মহাদেবপুর সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঘোড়া মার্কার স্বতন্ত্র (বিএনপি) প্রার্থী আবদুল মান্নান চৌধুরী দুলাল, ভীমপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রামপ্রসাদ ভদ্র জানান, বিভিন্ন স্থানে তার ভোটারদের হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে। তার নির্বাচনী পোস্টার, ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। নৌকায় ভোট না দিলে ভোট কেন্দ্রে যেতে নিষেধ ও হাত পা ভেঙে দেয়ার হুমকী দেয়া হচ্ছে। একই অভিযোগ করেছেন রাইগাঁ ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ঘোড়া মার্কা প্রতিকের স্বতন্ত্র (নৌকার বিদ্রোহী) প্রার্থী মনজুর আলম মঞ্জু।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার নজরুল ইসলাম জানান, কয়েকটি ইউনিয়ন থেকে এ ধরনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেগুলোর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে পাঠিয়েছেন।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ