মোংলা পৌর নির্বাচনে মেয়রে আওয়ামীলীগের আঃ রহমান বিজয়ী

মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান বিজয়ী হয়েছেন। ১৬ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম’র মাধ্যমে বিরতিহীন ভাবে শান্তিপূর্ন ভোট হয়েছে।

কেন্দ্র দখল, এজেন্ট ঢুকতে না দেয়া এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগে বিএনপি মনোনীত ধানেরশীষ প্রতীকের প্রার্থী মোঃ জুলফিকার আলী শনিবার সকালে ভোট বর্জন। নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত ০৯জন সাধারণ এবং ০৩জন সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

রিটার্নিং অফিসার ফারাজী বেনজীর আহম্মেদ জানান মোংলা পোর্ট পৌরসভা নির্বাচনে বেসরকারি ভাবে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান নির্বাচিত হয়েছেন। নৌকা প্রতীকের প্রাপ্ত ভোট হচ্ছে ১২ হাজার ১শো ২৫ ভোট। শেখ আব্দুর রহমানের নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী ছিলেন বিএনপি মনোনীত ধানেরশীষ প্রতীকের প্রার্থী মোঃ জুলফিকার আলী। ধানেরশীষ প্রতীকের প্রাপ্ত ভোট ৫শো ৯২ ভোট। নির্বাচিত সাধারণ আসনের কাউন্সিলররা হচ্ছে এস এম কবীর হোসেন (১নং ওয়ার্ড), এইচ এম শরিফুল ইসলাম (২নং ওয়ার্ড), মোঃ বাহাদুর মিয়া (৩নং ওয়ার্ড), শফিকুর রহমান খান (৪নং ওয়ার্ড), শরীফ হোসেন (৫নং ওয়ার্ড), জি এম আলামীন (৬নং ওয়ার্ড), হুমায়ুন হামিদ নাসির (৭নং ওয়ার্ড), ছরোয়ার হোসেন (৮নং ওয়ার্ড) ও মজনু গাজী (৯নং ওয়ার্ড)। সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচিত কাউন্সিলররা হচ্ছে জাহানারা চানু (১,২,৩), জোহরা বেগম (৪,৫,৬) এবং শিউলি আক্তার (৭,৮,৯)। নির্বাচনে ১২টি কেন্দ্রে মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১২ হাজার ৭শো ৫০ ভোট। বাতিলকৃত ভোটের সংখ্যা ০৫ ভোট। সর্বমোট প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ১২ হাজার ৭শো ৫৫ ভোট। কাস্টিং ভোট পড়েছে ৪০.৫০%।


আরও পড়ুন>>


বিএনপি মনোনীত ধানেরশীষ প্রতীকের প্রার্থী মোঃ জুলফিকার আলী কেন্দ্র দখল, এজেন্ট ঢুকতে না দেয়া এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগে সকাল ১১টার দিকে মাদ্রাসা রোডস্থ তার নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ভোট বর্জনের ঘোষনা দেন।

বিএনপিথর মেয়র প্রার্থীর অভিযোগের বিষয়ে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান বলেন অবাধ-সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়েছে। বিচ্ছিন্ন ২/১টি ঘটনা ঘটেছে। তার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

জুলফিকার আলীর অভিযোগের বিষয়ে রিটার্নিং অফিসার ফারাজী বেনজীর আহম্মেদথর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেয়র প্রার্থী মোঃ জুলফিকার আলী সকাল থেকে বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে ২/১টি কেন্দ্রথর দিকে নজর দিতে বলেন। তার কথা মোতাবেক আমি সাথে সাথে ব্যবস্থা নিই। অধিক সংখ্যক আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করি। বড় ধরনের অপ্রীতিকর কোন ঘটনা নেই। শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে। ৫নং ওয়ার্ডের স্বতন্ত্র

কাউন্সিলর প্রার্থী এইচ এম মাসুম বিল্লাহ বলেন, সাধারণ ভোটারদের ভোট প্রদানে বাধা দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে ৭নং ওয়ার্ডের মোংলা সরকারি কলেজ কেন্দ্রে সকাল ১০টায় ভোট প্রদান শেষে নতুন ভোটার রুমি আক্তার বলেন ইভিএম ভোট দিতে কোন অসুবিধা হয়নি। শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট হয়েছে। কেন্দ্রের ভিতরে ও বাইরে হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশ বজায় ছিলো। সেন্ট পল্স উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে শনিবার দুপুরে ভোট প্রদান শেষে শায়লা পারভীন বলেন ব্যাপক সংখ্যক ভোটার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট হয়েছে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: