রাজবাড়িতে পরীক্ষার নামে বেতন-ফি আদায়

রাকিবুল ইসলাম রাফি, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি।।

পাংশা উপজেলার দুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন, বিদ্যুৎ বিল ও পরীক্ষার ফি আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাড়িতে পরীক্ষা নেওয়ার অজুহাতে যাবতীয় পাওনা আদায় করছে পাংশা উপজেলার দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাছপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বাহাদুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

করোনাকালে বিদ্যালয় বন্ধ ও এসব পাওনা আদায়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকলেও শিক্ষার্থীদের সেগুলো পরিশোধের নির্দেশ দেওয়ায় অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

তাদের অভিযোগ, মাছপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বাহাদুরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ফোন ও প্রাইভেট শিক্ষকদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের প্রতি মাসিক বেতন ও পরীক্ষার ফি পরিশোধ এবং বাড়িতে পরীক্ষা নেওয়ার নোটিশ দিয়েছে। ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা প্রাইভেট ও ফোন আলাপের মাধ্যমে বিষয়টি শেয়ারও করছেন শিক্ষার্থীদের সাথে। এর মধ্যে মাছপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাফুরা খাতুনের আদেশ ক্রমে এই ব্যাপারে মাছপাড়া ইউনিয়ন জুড়ে মাইকিংও করা হয়েছে।


আরও পড়ুন>>


মাছপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একজন অভিভাবক বলেন, করোনাকালে বিদ্যালয় বন্ধ থাকার পরও বিদ্যুৎ বিল ও টিউশন ফি আদায় করা অমানবিক। শিক্ষার্থীদের কাছে প্রশ্ন দিয়ে বাড়িতে পরীক্ষা নেওয়ার যৌক্তিকতাও প্রশ্নবিদ্ধ।

মাছপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাফুরা বলেন, পরীক্ষা নেওয়ার কোনো নির্দেশনা সরকারি পর্যায় থেকে নেই। বিদ্যালয়ের বিভিন্ন ব্যয় নির্বাহে টিউশিন ফি আদায়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


আরও পড়ুন>>


উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. টিপু সুলতান খান জানান, বেতন আদায় ও পরীক্ষা সংক্রান্ত কোনো নির্দেশনা দেননি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকেও কোনো বিদ্যালয়কে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস বলেন, বাহাদুরপুর বিদ্যালয়ের বিষয়ে আমার জানা নেই। মাছপাড়া বিদ্যালয়ের এক নারী অভিভাবক আমাকে ফোন দিয়েছিলেন। বেতন আদায়ের নোটিশটি দেখিনি। দেখে অভিযুক্ত বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেবো।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: