রাজবাড়ীতে পদ্মার পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে বইছে, পানি বন্দী হাজারো মানুষ।।

রাজবাড়ীর সদর, পাংশা ও গোয়ালন্দ উপজেলার ৩ টি পয়েন্টে পদ্মার পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে বইছে। ফলে ওই সব এলাকার সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। করে দুর্ভোগে পড়েছেন ওই এলাকার বাসিন্দারা।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, রাজবাড়ীর তিনটি পয়েন্টেই পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রাজবাড়ী সদর উপজেলা মহেন্দ্রপুর পয়েন্টে পানি দুই সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ২৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পাংশা উপজেলার সেনগ্রাম পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে চার সেন্টিমিটার। গতকাল পানি বিদৎসীমার ৬২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে দৌলৎদিয়া পয়েন্টে পানি দুই সেন্টিমিটার কমে বিপৎসীমার ১০৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।


আরও পড়ুন


পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সফিকুল ইসলাম শেখ বলেন, রাজবাড়ীর তিনটি পয়েন্টে পানি প্রবাহের মাত্রা পরিমাপ করা হয়। এরমধ্যে সদর ও পাংশায় উপজেলার পয়েন্টে পদ্মার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। অপরদিকে দৌলৎদিয়া পয়েন্টে পানি দুই সেন্টিমিটার কমেছে। সার্বিক ভাবে পানি বৃদ্ধির পরিমান প্রায় স্থির রয়েছে। অল্প দুই-এক স্থানে হালকা ভাঙন শুরু হয়েছে।

জেলার সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়ন ঘুরে দেখতে পাই কৃষক তার জমির ফসল ঘরে তুলতে পারে নাই আগাম বন্যার কারনে, কেউবা আবার বসত বাড়িতে বন্যার পানি উঠায় নৌকাতেই ঘুমাচ্ছে। তারা জানায় কাজ না থাকার কারনে অনাহারে দিন যাচ্ছিলো তবে প্রশাসনের তরফ থেকে আজ ত্রান দিয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাঈদুজ্জামান খান বলেন, মিজানপুরের চর এলাকায় কয়েকটি গ্রাম সরেজমিন গিয়েছিলাম। বাসিন্দারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া বরাট ইউনিয়নের কারিতাস আশ্রয় কেন্দ্র ও আকিরুন্নেছা মাদ্রাসায় ৭৫টি পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের বরাত দিয়ে জানান পানি বন্দী মানুষের মাঝে আমাদের খাদ্য সহায়তা চলতে থাকবে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: