লালমনিরহাটে গৃহবধূকে বেধড়ক পেটানোর অভিযোগ, থানায় মামলা দায়ের

এস এম আলতাফ হোসাইন সুমন,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় সেলিনা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূকে বেধড়ক পেটানোর অভিযোগ উঠেছে পাষন্ড স্বামী আঃ কুদ্দুস শাওনের বিরুদ্ধে। গুরুত্বর আহত ওই গৃহবধূ বর্তমানে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে

রোববার (২২ নভেম্বর) ১১টায় সকাল আহত সেলিনা বেগম বাদী হয়ে স্বামী আঃ কুদ্দুস শাওনকে প্রধান আসামী করে ৪ জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দদায়ের করেন।
এর আগে গত শুক্রবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে এ ঘটনাটি ঘটে।

অভিযুক্ত আঃ কুদ্দুস শাওন জেলারহাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের দবিয়ার রহমানের ছেলে। আহত সেলিনা বেগম একই উপজেলার পশ্চিম বেজগ্রাম এলাকার নুর ইসলামের মেয়ে বলে জানা গেছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, আজ থেকে আট বছর পূর্বে এক লক্ষ টাকা যৌতুকের বিনিময়ে সেলিনা বেগমের বিয়ে হয় আঃ কুদ্দুস শাওনের সাথে। এরপর তাদের ঘর আলোকিত করে জন্ম নেয় ফুটফুটে একটি পুত্র সন্তান। চার বছর বয়সের পুত্র সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে ভালোই চলছিলো সংসার। এরই মাঝে হঠাৎ শাওন আবারো সেলিনাকে বাপের বাড়ি থেকে এক লাখ টাকা নিয়ে আসতে চাপ দেয়। কিন্ত সেলিনা বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে অপারগতা প্রকাশ করলে তার উপর নেমে আসে অমানবিক নির্যাতন।


আরও পড়ুন


এমতাবস্থায় গত শুক্রবার দুপুরে সেলিনাকে বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার চাপ দিতে থাকে শাওন। এতেও রাজি না হলে অভিযুক্তরা ক্ষিপ্ত হয়ে সেলিনার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তার চুলের মুটি ধরে টানা হেছড়া করে এবং লাঠি দিয়ে বেধড়ত পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে স্থানীয়রা সেলিনাকে আহত অবস্থায় বাড়ি বাইরে পরে থাকতে দেখে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করায়।
এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত আঃ কুদ্দুস শাওন বললে সে বলেন, যৌতুকের কারনে তাকে মারধর করা হয়নি। ঘরে থাকা মাছ বিড়াল খেয়েছে বলে তাকে মারধর করা হয়েছে।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে থাকা সেলিনা বেগম বলেন, বিয়ের সময় বাপের বাড়ি থেকে এক লক্ষ্য টাকা যৌতুক দেয়। এরপরেও ও আমাকে কারনে অকারনে প্রায় মারধর করে। এখন আবারো এক লক্ষ্য টাকা আনতে বলে। আমি দিতে রাজি না হলে আমাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, ওই গৃহবধুর পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে তা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: