শহীদ মিনার একটা আবেগের জায়গা,এমপি জিল্লুল হাকিম

- Advertisement -

পাংশায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ছিল না। আজ ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হলো। দ্রুতই বাস্তবায়ন করা হবে। শহীদ মিনার একটা আবেগের জায়গা। এখানে সভা-সমাবেশ হবে। মানুষ এসে তার মনের কথা বলবে। ঢাকায় যেমন বিশিষ্ট কোনো ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করলে তাঁর লাশ শহীদ মিনারে রেখে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়, তাঁকে শেষ বিদায় জানানো হয়, এখানেও তেমন হবে।রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন কালে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রাজবাড়ী ২ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিল্লুর হাকিম এসব কথা বলেন।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) বেলা সাড়ে বারোটায় পাংশা সরকারি জর্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের পশ্চিম পাশে শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের সময় তিনি আরও বলেন, মাতৃভাষা ও মুক্তিযুদ্ধের লড়াকু সৈনিকরা কীভাবে পরিবার ও মায়ের আঁচল ছেরে যুদ্ধ করতে গিয়ে ছিলেন সেটা শিক্ষার্থীদের জানা দরকার। তারা কত ত্যাগ করেছেন এই ভাষা ও দেশের জন্য সেটা চিরদিনই স্মরণ করতে হবে।এদের আত্মত্যাগ থেকেই আমাদের শিক্ষা নেওয়া উচিত দেশের জন্য কী করার যায়!ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, লেখা পড়ায় মনোযোগ দিয়ে হবে। মনে রাখতে হবে পড়ালেখা যেনো নিজের কল্যাণ, পরিবারের কল্যান ও দেশের কল্যাণে হয়।

ভিত্তিপ্রস্তর কালে উপস্থিত ছিলেন-উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদ হাসান ওদুদ, পাংশা সরকারি জর্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মাদ আলী, ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ জালাল উদ্দিন বিশ্বাস, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, পাংশা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুল খালেক, পাংশা সরকারি জর্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রাশেদা খাতুন সহ অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ