সেনা কর্মকর্তাদের ফোন নম্বর ব্লক করে রেখেছেন ইমরান খান

- Advertisement -

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খানের দাবি, দেশটির সেনা কর্মকর্তারা তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন। তবে কর্মকর্তাদের ফোন নম্বর ব্লক করে রেখেছেন তিনি। শুক্রবার (১৩ মে) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা জানান পিটিআই নেতা ইমরান খান। ইমরান খান বলেন, পরবর্তী নির্বাচনের দিন ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত তিনি কারও সঙ্গে কথা বলবেন না।

এ সময় ইমরান খান ‘ষড়যন্ত্রের’ সমর্থকদের উদ্দেশে প্রশ্ন করেন, তারা কি পাকিস্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত নন? তিনি বলেন, এই লোকগুলোকে ক্ষমতায় রাখার চেয়ে দেশের ওপর পারমাণবিক বোমা ফেলাই ভালো। পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, ক্ষমতায় থাকার শেষদিন পর্যন্ত তার সঙ্গে সামরিক বাহিনীর সম্পর্ক ভালো ছিল। শুধু দুটি বিষয়ে তাদের মতের মিল হয়নি।

পিটিআই চেয়ারম্যান বলেন, “একটি ‘শক্তিশালী মহল’ উসমান বুজদারকে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে অপসারণ করতে চেয়েছিল। কিন্তু সিন্ধুতে আরও দুর্নীতি ও শাসনসংক্রান্ত সমস্যা রয়েছে। ফলে আমি সেটা হতে দিইনি। দ্বিতীয় মতপার্থক্যটি ছিল লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ ইস্যুতে।” ইমরান খান চেয়েছিলেন আফগানিস্তান পরিস্থিতি এবং তৎকালীন বিরোধীদের ‘পটভূমির’ কারণে আগামী শীতকাল পর্যন্ত ওই সেনা কর্মকর্তা পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী গোয়েন্দা প্রধান (আইএসআই) হিসেবে দায়িত্ব পালন করুক। কিন্তু তাতে সমর্থন দেননি পাকিস্তানের সেনাপ্রধান।

এদিকে জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা না হলে সরকারকে কঠিন পরিণতির মুখে পড়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ দলের প্রধান ইমরান খান। সরকারের কাছে দ্রুত সাধারণ নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। ইমরান বলেন, নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা না হলে ইসলামাবাদ অভিমুখে ‘জনসমুদ্র’ রওনা হবে, যা সরকারের জন্য ধ্বংসাত্মক হবে।

ইসলামাবাদে সমাবেশে যাওয়ার আগে গত শুক্রবার মর্দান রেল স্টেশনে এক জনসভায় দেওয়া ভাষণে ইমরান খান এ দাবি করেন। ইমরান খান বলেন, ‘পাকিস্তানের মানুষ বিদেশ থেকে আমদানি করা নতুন এ সরকার চায় না। এ কারণে আমরা দ্রুত নির্বাচন চাই। তাই খুব শিগগিরই নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করুন।’

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ