স্ত্রীর উদ্দেশ্যে চিঠি লিখে স্বামীর আত্নহত্যা

- Advertisement -

‘বিদায় ভালোবাসা’ ওকে অনেক রিকুয়েষ্ট করেছি ওকে আসার জন্য, ও আসে নাই, সে ভেবেছিলো আমি তার ক্ষতি করবো, ভালোবাসার জন্য যে নিজের জীবন দিতে পারে সে কারো ক্ষতি করতে পারে না। আমি বেঁচে থাকলে তোমার অনেক ক্ষতি হতে পারে তাই আমি আমার জীবন দিয়ে দিলাম। যেখানেই থাকো যার সাথেই থাকো ভালো থেকো।মৃত্যুর আগে একটি চিঠিতে এ কথা গুলো লিখে গেছে নয়ন শেখ।

নিহত নয়ন শেখ (২২) রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের আইনুদ্দিন শেখ এর ছেলে।গেল বৃহস্পতিবার বেলা বারটার দিকে তার ঘর থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশ।

স্থানীয়দের মাধ্যমে জানাযায়, প্রতিদিনের মত নয়ন শেখ বুধবার রাতে তার ঘরে ঘুমাতে যায় পরদিন বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টার দিকে ঘরের দরজা বন্ধ দেখে তার মা অনেক ডাকাডাকি করেন। তবুও দরজা না খুলায় পরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে নয়ন শেখের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় সবাই। পরে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে প্রায় ৬ মাস আগে খুলনার রূপসা এলাকার প্রিয়া নামে একটি মেয়ের সাথে নয়ন শেখ এর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে প্রিয়া নয়ন এর বাড়িতে চলে আসে ভালোবাসার টানে। অতপর তারা বিয়ে করে সংসার শুরু করে। ক’মাস যাওয়ার পর প্রিয়ার মা এসে মেয়েকে নিয়ে যায় ,আবার নয়ন সেখানে গিয়ে প্রিয়াকে নিয়ে আসে। মাঝে মাঝেই প্রিয়ার মা এসে কাউকে কিছু না বলেই প্রিয়া কে নিয়ে যায় তার বাবার বাড়িতে।

নয়নের বোবা মা ও বাবা দুজনে মিলে মুদি দোকান করে। দিনের বেলায় বাড়িতে প্রিয়া একাই থাকে। এক মাস আগে প্রিয়ার মা এসে প্রিয়াকে বাবার বাড়িতে নিয়ে যায়। এ পর্যায়ে প্রিয়ার দাবি নয়ন যদি শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতে পারে তাহলে সে আসবে, তা না হলে আসবে না। এরপর প্রিয়ার বাড়িতে তাকে আনতে গিয়েও নয়ন ফিরে আসে খালি হাতে। এসব নিয়ে নয়ন খুব মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন।

নয়ন বিভিন্ন মুদি দোকানে মালামাল ডেলিভারির কাজ করতো। প্রতি রাতেই বউকে তার বাড়িতে আসার জন্য ফোন করে কান্না কাটি করতো। কিন্তু প্রিয়ার একটাই দাবি, শহরে বাসা ভাড়া না নিলে সে আসবেনা। সামান্য উপার্জনে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকার সামর্থ্য ছিলনা নয়নের। এ নিয়েই বউয়ের সাথে অভিমান করে গত বুধবার রাতে ঘরে ঢুকে আর বেড় হয় লাশ হয়ে। নয়ন তার ঘরের মধ্যেই প্রথমে বিষ পান করে ও পরে বউ এর ওড়না দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলে আত্নহত্যা করেছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় সাবেক মহিলা সংরক্ষিত সদস্য সাজেদা জানান, বউয়ের সাথে ঝামেলা করেই ছেলেটি আত্নহত্যা করেছে। এ বাড়িতে মেয়েটাকে খুব যত্ন করা হতো।

নিহত নয়ন শেখের বাবা আইনুদ্দিন শেখ জানান, নয়ন তার বউকে খুব ভালোবাসত। আমরাও খুব আদর করতাম। আমার বাড়িতে আমি নয়নের বোবা মা আর নয়নের বউ ছাড়া আর কোন লোক নাই। কিন্তু মেয়েটা এ বাড়িতে থাকতে চাইত না। অনেক বুঝিয়েছি কোন কথা শুনলো না। সে তার মায়ের সাথে চলে গেছে আর আসবেনা । এ জন্য আমার ছেলে আত্নহত্যা করেছে।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানার এস আই সনাতন মন্ডল জানান, খবর পেয়ে গিয়ে ঘর থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠাই। নিহত নয়ন শেখ এর ঘাড়ে দাগ রয়েছে তবে শরীর নীল বর্ণ দেখা গেছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ বিষয়ে সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ