হাতীবান্ধা সীমান্তে বিজিবি ও গ্রামবাসীর উত্তেজনা

- Advertisement -

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার গোতামারী ইউনিয়নের আমঝোল এলাকার মতিয়ার রহমান নামের এক ব্যাক্তির বাড়িতে ঢুকে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি’র বিরুদ্ধে। এ সময় গ্রামবাসীরা বিজিবি’র জোয়ানদের উপর চড়াও হলে তারা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে যায়।

সোমবার সকালে ওই এলাকার আমঝোল এলাকার ভুটিয়া মঙ্গল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও ওই বাড়ির লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায় সোমবার সকালে ওই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমানের ছোট ভাই মতিয়ার রহমানের বসত বাড়ীতে উপজেলার দৈখাওয়া বিজিবি ক্যাম্পের একটি টহলদল এসে কোন কিছু না বলেই বাড়ীতে ঢুকে তল্লাশির কথা বলে বাড়ী ঘর ভাংচুর করে। এ সময় শুধুমাত্র দুজন মহিলা বাড়ীতে ছিলেন । পরে এলাকাবাসী উত্তেজিত হলে তারা চলে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই বিজিপি বাড়ীঘর ভাংচুর করেন ও তারা কিছু না পেয়ে পরে আমাদের দেখে নিবেন বলে হুমকী দিয়ে চলে যান।

অপর দিকে দৈখাওয়া বিজিবি ক্যাম্পের কম্পানী কমান্ডার সুবেদার হারুন আর রশিদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি যে মতিয়ার রহমানের বাড়ীতে ৪ জন ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে ঐ বাড়ীতে অবস্থান করছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই হাবিলদার আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি টহল দল ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়ীটি ঘিরে রেখে শুধুমাত্র তল্লাশী করে। এ সময় ঘটনাস্থলে অত্র ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোনাবেরুল হক মোনা উপস্থিত ছিলেন।

আমরা কোন বাড়ী ঘর ভাংচুর করিনি তাদের অভিযোগ সম্পুর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবী করেন তিনি। এ বিষয়ে গোতামারী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মোনাব্বেরুল হক মোনা বলেন, আমার উপস্থিতিতেই বিজিবি শুধুমাত্র তল্লাশী করে , কোন কিছু না পেয়ে তারা চলে যায়। কোন ঘরবাড়ী ভাংচুর এর সাথে বিজিপি জড়িত নয়।

উল্লেখ্য যে সরকারী কাজে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ এনে মজিদুল ইসলাম জংলু কে আটক করে হাতীবান্ধা থানায় সোপদ্দ করেন ও আরো অজ্ঞাত নামা ৫০/৬০ জন ব্যাক্তিকে আসামী করে বিজিবি’র কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার হারুন অর রশিন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং-১১, তাারিখ ১০/০১/২২।
আটক মজিদুল ইসলাম জংলু ওই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমানের ছেলে।

এ ব্যাপারে হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইন চার্জ এরশাদুল আলম জানান- বিজিবি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত সর্বাপেক্ষে আইন গত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ