৩৫ শতাংশ শেয়ার শেয়ারবাজারে আনছে বিএসইসি

- Advertisement -

শেয়ারবাজারকে স্থিতিশীল রাখতে ৩৫ শতাংশ শেয়ার অতি দ্রুত শেয়ারবাজারে ছাড়ার উদ্যোগ নিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) দুই স্টক এক্সচেঞ্জের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে আগামী বছর জানুয়ারির ১০ তারিখের মধ্যে দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের ৩৫ শতাংশ শেয়ার বাজারে ছাড়ার বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা জমা দিতে বলেছে বিএসইসি।

বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে, সাধারণ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত ৩৫ শতাংশ শেয়ার আট বছর ধরে ব্লক হিসেবে পড়ে আছে। এসব শেয়ার পুঁজিবাজারে আনার ক্ষেত্রে কোনো প্রতিবন্ধকতা থাকলে তা-ও কমিশনকে জানাতে বলা হয়েছে। স্টক এক্সচেঞ্জের মালিকানা থেকে ব্যবস্থাপনা পৃথক্‌করণ বা ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী, এসব শেয়ার সংরক্ষিত করে রাখা হয়েছে।

২০১০ সালে শেয়ারবাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য ডিমিউচুয়ালাইজেশনের উদ্যোগ নেওয়া হলেও এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে বাস্তবিক অর্থে কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইনে সাধারণ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩৫ শতাংশ শেয়ার বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) তো গত আট বছরে কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত ২৫ শতাংশ শেয়ারও বিক্রি করতে পারেনি। ফলে সিএসইর ৬০ শতাংশ শেয়ার ব্লক হিসাবে পড়ে আছে। আর ডিএসইর ব্লক হিসাবে অবিক্রীত আছে ৩৫ শতাংশ শেয়ার।

ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী, দুই স্টক এক্সচেঞ্জের মালিকানাসংক্রান্ত মোট শেয়ার প্রতিষ্ঠান দুটির সদস্যদের মধ্যে সমভাবে বণ্টন করা হয়। সদস্যদের জন্য ৪০ শতাংশ শেয়ার সংরক্ষিত। বাকি ৬০ শতাংশ শেয়ারের মধ্যে ২৫ শতাংশ কৌশলগত বিনিয়োগকারী ও ৩৫ শতাংশ শেয়ার সাধারণ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ