৫০০০ কোটির সম্পত্তি পাবে না সাইফের ছেলেরা

- Advertisement -

সাইফ আলী খান। সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে অন্যরকম দাপট আছে এই তারকার। যদিও বলিউডের অন্য খানদের থেকে কাজে পিছিয়ে থাকলেও সন্তান দিয়ে এগিয়ে আছেন এই নবাবী তারকা। এক মেয়ে ও তিন ছেলে নিয়ে চার সন্তানের বাবা তিনি।

১৯৯১ সালে ২১–এ পা দিয়েই নিজের চেয়ে ১৩ বছরের বড় অমৃতা সিংকে বিয়ে করেন। ২৫ বছর বয়সে প্রথমবারের মতো বাবা হন। আর শেষবার বাবা হলেন ৫০ বছর বয়সে। ২০০১ সালে জন্ম নেয় বড় ছেলে ইব্রাহীম আলী খান। এর তিন বছর পর ২০০৪ সালে সাইফ আলী খান ও অমৃতা সিংয়ের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর দীর্ঘ সময় একা ছিলেন সাইফ।

এরপর বলিউডের বেবো কারিনা কাপুরের সঙ্গে সম্পর্ক। ২০১২ সালে নিজের চেয়ে ১০ বছরের ছোট কারিনা কাপুরের সঙ্গে বিয়ের পর তৈমুর জন্ম নেয় ২০১৬ সালে। এরপরই বলিউডের সব আলো এসে পড়ে তার ওপর। ২০২১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি চতুর্থবারের মতো বাবা হন তিনি। তবে সাইফ আলি খান বলিউড তারকা হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি রাজপরিবার থেকে এসেছেন। তার বাবা মনসুর আলি খান পাতৌদি ওরফে টাইগার পাতৌদির পর সাইফ পাতৌদির দশম নবাব। সে হিসেবে তার সন্তানেরাও নবাবী আবহেই বেড়ে উঠেছে।

তবে সম্প্রতি সাইফের নবাবী সম্পত্তির হিসাব তুলেছে ভারতীয় এক গণমাধ্যম। সেখানেই জানানো হয়, ভোপালে প্রায় পাঁচ হাজার কোটি রুপি সমমূল্যের পৈতৃক সম্পত্তি রয়েছে সাইফের। তবে ওই সম্পত্তি থেকে তিন ছেলে ইব্রাহিম আলি খান, তৈমুর আলি খান ও জাহাঙ্গীর আলি খানকে এক পয়সাও দিতে পারবেন না সাইফ!

প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওই সমস্ত সম্পত্তি এবং পাতৌদি নবাববাড়ির অন্যান্য সম্পত্তি ভারত সরকারের বিতর্কিত শত্রু বিরোধ আইনের আওতায় পড়েছে। আইন অনুযায়ী, ওই সম্পত্তির দাবি কেউ করতে পারবে না। কিন্তু যদি কোনো উত্তরাধিকারী দাবি করে বসেন, তবে তাকে হাইকোর্টে আবেদন করতে হবে। এর পর তাকে যেতে হবে সুপ্রিম কোর্টে এবং সবশেষে তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করতে পারবেন। সাইফ আলি খানের প্রপিতামহ হামিদুল্লাহ খান ব্রিটিশ শাসনামলে পাতৌদির নবাব ছিলেন। তিনি কোনো সম্পত্তি কারও নামে উইল করে যাননি। তাই এত কোটির সম্পত্তি থাকলেও তা ভোগ করতে আদতেও পারবেন না সাইফ আলীর ৩ ছেলে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

প্রতিবেদক

সর্বশেষ সংবাদ