Homeআন্তর্জাতিকনাগরিকদের কেন খাদ্য-পানি মজুতের পরামর্শ দিলো ব্রিটিশ সরকার

নাগরিকদের কেন খাদ্য-পানি মজুতের পরামর্শ দিলো ব্রিটিশ সরকার

নাগরিকদের খাবার, পানি এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম মজুত রাখার পরামর্শ দিয়েছে ব্রিটিশ সরকার। দেশটির সরকার নতুন একটি ওয়েবসাইট চালু করে এই পরামর্শ দিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম স্কাই নিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ব্রিটেনের উপপ্রধানমন্ত্রী অলিভার ডাউডেন এই ওয়েবসাইট উন্মোচন করেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আপদকালীন টর্চলাইট, টিনজাত মাংস, পানির বড় বোতলসহ বিভিন্ন শুকনো খাবার মজুত করার পরামর্শ দিয়েছে প্রিপেয়ার ক্যাম্পেইন নামের ওয়েবসাইটে। মূলত জৈব নিরাপত্তাসংকট, বন্যা, বিদ্যুৎ-জ্বালানির সংকট কিংবা যেকোনো ধরনের অতিমারি মোকাবিলার জন্য এ ধরনের খাবার-পানি মজুতের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

ওয়েবসাইটে ব্রিটিশ পরিবারগুলোকে পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের জন্য অন্তত গড়ে ৩ লিটার করে পানি মজুত রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। তবে আরও আরামদায়ক জীবনযাপন, রান্না ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের জন্য জনপ্রতি অন্তত ১০ লিটার করে পানি মজুতের সুপারিশ করা হয়েছে।

পানির পাশাপাশি শুকনো ও অপচনশীল খাবার, যা রান্নার প্রয়োজন নেই যেমন-টিনজাত মাংস, শাকসবজি, ফলমূল এবং শিশুদের ও পোষা প্রাণীর জন্য প্রয়োজনীয় খাবার সংরক্ষণের পরামর্শও দিয়েছে ব্রিটিশ সরকার। এ ছাড়া টিনজাত খাবার খোলার প্রয়োজনীয় সরঞ্জামও টিনের সঙ্গেই মজুত থাকতে হবে। এর বাইরে টর্চের জন্য ব্যাটারি, ওয়েট টিস্যু, রেডিও এবং ফার্স্ট এইড কিটও মজুত রাখতে হবে।

ব্রিটিশ উপপ্রধানমন্ত্রী এই ওয়েবসাইটের বিষয়ে বুধবার (২২ মে) লন্ডন ডিফেন্স কনফারেন্সে দেয়া এক ভাষণে জরিপের বরাত দিয়ে জানান, ব্রিটেনের মাত্র ১৫ শতাংশ পরিবারে জরুরি অবস্থায় প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম মজুত আছে। এ ছাড়া দেশের ৪০ শতাংশ পরিবারে তিন দিন চলবে এমন অপচনশীল খাদ্যের মজুত নেই।

অলিভার ডাউডেননের মতে, এই ওয়েবসাইট শুধুমাত্র মানুষকে খাদ্য-পানি বা অন্যান্য সরঞ্জাম মজুত করতেই উৎসাহিত করবে না, বরং মানুষকে বিভিন্ন দুর্যোগ-সংকটের সময় কী কী করণীয়, সে বিষয়ে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য উৎসাহিত করবে।

সর্বশেষ খবর

Exit mobile version