Homeসর্বশেষ সংবাদসিগারেটের জন্য মরতে হলো ফারুক ভূঁইয়াকে!

সিগারেটের জন্য মরতে হলো ফারুক ভূঁইয়াকে!

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় বাকিতে সিগারেট না দেয়ায় হামলার স্বীকার আহত দোকান মালিক ফারুক ভূঁইয়া (৩০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এরআগে শুক্রবার (৩১ মে) রাতে পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের চড়কগাছিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহত ফারুক ভূঁইয়া পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের চড়কগাছিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার মৃত নুরু ভূঁইয়ার ছেলে।

নিহতের স্ত্রী রিজিয়া বেগম জানান, জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার সাপলেজা ইউনিয়নের চড়কগাছিয়া আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার পূর্ব পাশে তার স্বামী ফারুক ভূঁইয়ার চায়ের দোকান চালাত। গত শুক্রবার (৩১ মে) রাতে দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফেরার সময় স্থানীয় শাওন হাওলাদার, শাহিন ও সুমন তার স্বামীর কাছে বাকিতে সিগারেট নিতে চায়। এ সময় তার স্বামী তাদের কাছে আগের পাওনা ১৪০০ টাকা চায় এবং বাকিতে সিগারেট দিতে পারবে না বলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শাওন হাওলাদার, শাহিন ও সুমন তার স্বামীর ওপর লোহার রড দিয়ে হামলা চালায়। এতে তার স্বামী ফারুক ভূঁইয়া গুরুতর আহত হলে স্থানীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথম মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকালে ফারুক ভূঁইয়া মারা যায়।

মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম জানান, বাকিতে সিগারেট না দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে দোকান মালিকের ওপরে এ হামলা হয়েছে। ৩১ মে রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পরে ৪ জুন ফারুক ভূঁইয়ার স্ত্রী রিজিয়া বেগম তিনজনকে আসামি করে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

সর্বশেষ খবর