থমথমে বলিউড, তড়িঘড়ি মুম্বই ফিরলেন সারা, আসছেন দীপিকাও

মুম্বই বিমানবন্দরে পা রাখলেন সারা আলি খান। সঙ্গে ছিলেন তাঁর মা অমৃতা সিংহ। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ মুম্বইয়ে পা রাখেন তিনি। অন্য দিকে আজই মুম্বই ফিরছেন দীপিকা পাড়ুকোনও। আর কিছুক্ষণের মধ্যেই চার্টার্ড প্লেনে মুম্বইয়ে নামবেন তিনি। পরিচালক শকুন বাত্রার ছবির শুটিংয়ে গোয়া গিয়েছিলেন দীপিকা। সারাও গোয়ায় গিয়েছিলেন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে।

বুধবারই মাদক যোগে সারা এবং দীপিকাকে সমন পাঠিয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। তাই এই তড়িঘড়ি ‘প্ল্যান চেঞ্জ’ দীপিকা-সারার।

এনসিবি সূত্রে জানা যাচ্ছে, আগামিকাল, শুক্রবারই এনসিবি দফতরে হাজিরা দেবেন দীপিকা। দীপিকা ছাড়াও রাকুল প্রীত সিংহও শুক্রবার এনসিবি দফতরে হাজির হবেন। শ্রদ্ধা এবং সারাকে ডাকা হয়েছে শনিবার। সব মিলিয়ে থমথমে বলিউড। তারকাদের ইনস্টা থেকে ফেসবুক, স্ন্যাপচ্যাট থেকে টিন্ডার কার্যত চুপ।

আজ সকাল ১০টা নাগাদ এনসিবি’র দফতরে ঢুকতে দেখা যায় নামজাদা ফ্যাশন ডিজাইনার সিমন খাম্বাট্টাকে। মাদক কাণ্ডে নাম জড়িয়ে গিয়েছে তাঁরও। এর খানিক পরেই সেখানে পৌঁছন সুশান্তের প্রাক্তন ট্যালেন্ট ম্যানেজার শ্রুতি মোদী। বলিউডের মাদক কাণ্ডে এই প্রথম বার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনসিবি দফতরে পৌঁছলেন সিমন, যদিও শ্রুতিকে এর আগে বেশ কয়েক বার জেরা করেছে ওই কেন্দ্রীয় সংস্থা।

শুধু বড় পর্দার অভিনেতারাই নন, বলিউডের মাদক যোগে চাপে ছোট পর্দার তারকারাও। করমজিৎ নামে যে মাদক পাচারকারীকে কিছু দিন আগে গ্রেফতার করেছিল এনসিবি, তাঁর বয়ানেই উঠে এসেছে মোট কুড়ি জন টেলিস্টারের নাম। এঁদের মধ্যে রয়েছেন সেলিব্রিটি কাপল আবিগালি পাণ্ডে এবং সনম জোহর। এনসিবি সূত্রে জানা যাচ্ছে, জেরা করা হচ্ছে তাঁদেরও। এ দিনও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁদের দফতরে ডেকেছে এনসিবি। তালিকায় রয়েছে আরও বেশ কিছু অভিনেতার নাম।


আরও পড়ুন


এনসিবি সূত্রে খবর, রাকুল এবং সারার নাম প্রথম বার এনসিবি’র কাছে ‘ফাঁস’ করেন রিয়াই। সিমনের নামও প্রকাশ করেন তিনি। ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে খবর, এই রাকুল, সারা এবং রিয়াই কিন্তু একসময় খুব ভাল বন্ধু ছিলেন। বহু বার একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন ওঁরা। মাঝেমধ্যেই সুশান্তের লোনাভালার ফার্মহাউজে পার্টি থেকে শুরু করে একসঙ্গে ঘুরতে যাওয়া… চলত সব। বলিউডের একাংশ বলছে, ওই পার্টিই ছিল নাকি ‘ড্রাগের আখড়া’। মদ-গাঁজা তো ছিলই, একই সঙ্গে চলত নানা নিষিদ্ধ মাদক। সত্যিই কি তাই? খতিয়ে দেখছে এনসিবি।

শ্রদ্ধার নাম কিন্তু রিয়া নেননি। তাঁর প্রসঙ্গে টেনে আনেন সুশান্তের প্রাক্তন ট্যালেন্ট ম্যানেজার জয়া সাহা। সেই জয়া সাহা যিনি রিয়াকে লিখেছিলেন, “সুশান্তের চায়ে কয়েক ফোঁটা মিশিয়ে দাও, ফল পাবে।” জানা গিয়েছিল জয়া সিবিডি অয়েল মেশানোর কথা বলছিলেন রিয়াকে। সিবিডি অয়েল আদপে গাঁজা থেকে নিঃসৃত এক ধরনের তেল জাতীয় পদার্থ। জয়া জেরায় জানিয়েছেন, শুধু সুশান্ত বা রিয়াই নন, বলিউডের অনেক স্টারকে ওই ‘সিবিডি অয়েল’ কিনে দিয়েছিলেন তিনি। যাঁদের মধ্যে এক জন হলেন শ্রদ্ধা কপূর।

আর দীপিকা? সূত্রের খবর, সেখানেও পরোক্ষে জয়ারই ‘হাত’। দীপিকার ম্যানেজার করিশ্মা আবার জয়ার খুব ভাল বন্ধু। একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবি’র হাতে আসে গত সোমবার। চ্যাটটি পুরনো। ২০১৭ নাগাদ। সেই চ্যাটেই দেখা যায়, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে দুই ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিক বার কথা চালাচালি হয়েছে। কখনও ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজা আছে কিনা জিজ্ঞাসা করছেন। আবার কখনও বা ‘কে’ তাঁকে (ডি’কে) গাঁজার হদিশ দিচ্ছেন। বলিউডের একাংশের দাবি, এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা নিজেই। আর ‘কে’ হলেন করিশ্মা। এনসিবি-র নজরে রয়েছে বছর তিনেক আগে দীপিকা-সহ বলিউডের বেশ কয়েক জন নামজাদা অভিনেতার ক্লাব ‘কোকো’-তে একটি পার্টির ঘটনা। বলিউডের অন্দরের খবর, ওই পার্টির জন্যই ‘কে’-র কাছে গাঁজার খবর জানতে চাইছিলেন ‘ডি’।

করিশ্মা কাজ করেন ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’-তে। ‘কওয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি’র কর্ণধার মধু মন্টেনাকে বৃহস্পতিবার জেরা করেছে এনসিবি। এই এজেন্সির নামেই দিন দুয়েক আগে বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছিলেন কঙ্গনা রানাউত। কঙ্গনা টুইটারে লেখেন, এই সংস্থারই সেক্রেটারি অনির্বাণ এক উঠতি অভিনেত্রীকে ধর্ষণ করেছিলেন।

এত অভিযোগের মাঝে একেবারে চুপ বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতা শাহরুখ, সলমন, অমিতাভরা। মুখ খোলেননি রণবীর সিংহও। কী হতে চলেছে কেউ জানেন না। কাঁপছে বলিউড।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

লেখক

সর্বশেষ সংবাদ

%d bloggers like this: